মেইন ম্যেনু

মাথা কখনো অন্যায়ের কাছে নত করবে না: বেরোবিতে মানবাধিকার চেয়ারম্যান

এইচ.এম নুর আলম, বেরোবি প্রতিনিধি: ‘তোমরা যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করতে এসেছো তোমাদের মাথা সবসময় উঁচু থাকবে । মাথা কখনো অন্যায়ের কাছে নত করবে না সে যেই হোক না কেন। এই স্বাধীন চেতনা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে হয় আর যখন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চলে যাবে তখনও এই সৎ সাহস আর আত্মজিজ্ঞাসা থাকতে হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা স্বারকে অনুষ্ঠিত ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে গত রবিবার বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন,অন্যায় ও দুর্নীতির সাথে আপোষ করে কখনোই প্রকৃত মেধার বিকাশ ঘটানো সম্ভব নয়। অনুষ্ঠানে মানবাধিকার কমিশনের পক্ষ থেকে তিনি নবাগতদের শুভেচ্ছা জানান।

তিনি আরোও বলেন,‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষর্থীদের মধ্যে সৃজনশীলতা আনতে হবে।নিজের ক্যাম্পাসে বিভিন্ন শিক্ষামূলক অনুষ্ঠনে অংশগ্রহণ করে নিজেদেও ভিতরে লুকায়িত সুপ্ত মেধার বিকাশ ঘটাতে হবে।তিনি অন্যায়,অসমতা,দারিদ্রতা ,সচেতনতা ,বেকারত্বতা ও শোষণকে সাবলীল মেধা বিকাশের প্রধান অন্তরায় হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কেমন হতে হবে তার স্বরুপ উল্লেখ করতে গিয়ে তিনি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের একটি বিখ্যাত কবিতা’র চরন ‘বল বীর বল উন্নত মম শীর,শীর নেহারী তোমারি (তার ভাষায়) নত শির ঐ শিখর হিমাদ্রীর’ উল্লেখ করে বলেন, তরুণরা হবে বীরের মতো।শত বাঁধা বিপত্তি উপেক্ষা করে তারা বিজয় ছিনিয়ে আনবেই। তারা অন্ধকার এ জগতকে জ্ঞানের আলোয় আলোকিত করে সারাবিশ্বে নেতৃত্ব দানে মাথা উঁচু করে দাড়াবে’।

তিনি আরো বলেন, তিনি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় সর্ম্পকে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যানকে উদ্দেশ্য করে বলেন,‘বর্তমানে বাংলাদেশে ব্যাঙ্গের ছাতার মতো হয়ে দাড়িয়েছে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় গুলো। উচ্চ শিক্ষার মান কতটা নিশ্চিত হচ্ছে এসব বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বারা তিনি এটা নিয়ে ইউজিসি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নানের কাছে প্রশ্ন রাখেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত নবীনবরণ অনুষ্ঠানে আরো বক্তৃতা করেন , বিশ্ববিদ্যালয় মুঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান ড. আব্দুল মান্নান,জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম,বেরোবি উপাচার্যের সহধর্মিণী গুলনাহার বানু ছাড়াও বিভিন্ন অনুষদের ডিনগণ।






মন্তব্য চালু নেই