মেইন ম্যেনু

মাথা ন্যাড়া করে, জুতার মালা পরিয়ে ঘুরানো হলো কিশোরকে

১৬ বছর বয়সের ছেলেটির বিরুদ্ধে অভিযোগ, সে নাকি মোবাইল ফোন চুরি করেছে। যদিও হাতে নাতে ধরতে পারেনি অভিযোগকারী। তাতে কি হয়েছে, ছেলেটিকে ধরে মাথা ন্যাড়া করে, গলায় ছেঁড়া জুতা-স্যান্ডেলের মালা পরিয়ে বাজার এলাকা ঘোরানো হয়েছে। শত শত মানুষ বিষয়টি দেখেছেন। কিন্তু, কেউ কিছু বলতে পারেননি। কেননা যারা ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের মুখের উপর কেউ কিছু বলার সাহস রাখেননা। শেষ পর্যন্ত বিষয়টি পুলিশের কানে পৌঁছায়। পুলিশ গিয়ে অভিযোগকারী ও অভিযুক্তকে পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যায়।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, মুকসুদপুর উপজেলার চরপ্রসন্নদী গ্রামের হবি শেখের বাড়ি থেকে মঙ্গলবার রাতে একটা মোবাইল সেট চুরি হয়। চুরির অভিযোগ উঠে একই গ্রামের শাহাজান মিয়ার ছেলে নূর আলমের বিরুদ্ধে। হবি শেখের ভাই কবির শেখ নূর আলমকে বাড়ি থেকে ধরে এনে মারধর করে সারারাত বাড়িতে আটকে রাখে। পরে বুধবার সকালে তার মাথা ন্যাড়া করে জুতার মালা গলায় দিয়ে টেকের হাট বন্দর বাজার এলাকায় ঘোরায়। এ ঘটনায় এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নুর আলমের মা রহিমা খাতুন জানান, তিনি এ বিষয়টির সঠিক বিচারের আশায় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দেখা করেছেন। যারা তার ছেলেকে এভাবে নির্যা‌তন করেছে তাদের বিরুদ্ধে তিনি মুকসুদপুর থানায় মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন জানান, যারা ছেলেটিকে চুরির অপবাদ দিয়ে মারধর করেছেন, গলায় জুতার মালা দিয়ে বাজার এলাকায় ঘুরিয়েছেন তারা খুবই অন্যায় করেছেন। তাকে নাকি সিগারেটের আগুন দিয়েও ছ্যাঁকা দেওয়া হয়েছে। দেশে আইন আছে, সেখানে না দিয়ে কেউ এভাবে কাউকে নির্যাতন করতে পারে না। তিনি এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিষয়টি এখন যেহেতু প্রশাসন দেখছে তাই যা করবার তারাই করবেন বলে জানান।

মুকসুদপুরের সিন্দিয়াঘাট নৌতদন্ত কেন্দ্রের আইসি মো. জালাল উদ্দিন জানান, অভিযুক্ত ও অভিযোগকারী দুজনকেই আপাতত তাদের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

মুকসুদপুর থানার ওসি মো. আজিজুর রহমান জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। এ বিষয়ে তারা আইনগত ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান।






মন্তব্য চালু নেই