মেইন ম্যেনু

‘মাদকদ্রব্য আর সিগারেট ছিল সাবিরার নিত্যসঙ্গী’

নির্ঝরের পরিবার রাজি না থাকায় মডেল সাবিরা হোসেনকে (২১) বিয়ে করা সম্ভব হয়নি বলে নির্ঝর পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর রূপনগর থানার ওসি সৈয়দ শহীদ আলম বলেন, নির্ঝরকে গ্রেফতারের পর তার কাছে ঘটনার সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। এ সময় তিনি জানান, সাবিরার সঙ্গে তার দীর্ঘদিনের প্রেম ও অবাধ মেলামেশা ছিলো। তারা ধূমপান ও নেশা করতেন। সাবিরা মাদকদ্রব্যও গ্রহণ করতো।’

পুলিশ জানায়, বন্ধুদের সঙ্গে অনেক রাত পর্যন্ত বাইরে আড্ডা দিত সাবিরা। নির্ঝরের সম্মতিতেই এগুলো হতো। মাদকদ্রব্য আর সিগারেট ছিল সাবিরার নিত্যসঙ্গী। সাবিরা যখন জানতে পারলো নির্ঝরের সঙ্গে তার বিয়ে হবে না তারপরই সে আত্মহত্যা করার সিদ্ধন্ত নেয়। অবশ্য মারা যাওয়ার আগে সাবিরা ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস ও ভিডিও পোস্ট করেন। নির্ঝরকে উদ্দেশ্য করে তিনি লেখেন, ‘আমাকে ব্যবহার করবে, সেক্স করবে; আর আমি সরে যাব, এটা তো হতে পারে না। বিয়ের কথা বললে তোমার পরিবার অসুস্থ হয়ে যায়। আর সেক্সের কথা বললে সব ঠিক হয়ে যায়।’

মামা মর্তুজা কবির বলেন, ‘ছোটকাল থেকেই সাবিরার মডেলিংয়ের প্রতি আগ্রহ ছিল। পারিবারিক কারণে সে বাবা-মা’র কাছ থেকে দূরে ছিল। মডেলিং এ কাজ করতে গিয়ে নির্ঝরের সঙ্গে তার পরিচয় হয় এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।’

মঙ্গলবার সকালে মিরপুরের রূপনগরের একটি বাসা থেকে সাবিরার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সাবিরার মা বাদি হয়ে মামলা করেছেন। পুলিশ নির্ঝর ও তার ভাই প্রত্যয়কে গ্রেফতার করেছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই