মেইন ম্যেনু

মাদকাসক্ত শিক্ষার্থীদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ

আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সরকারি-বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় মাদক বিরোধী কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে মাদকাসক্ত ছাত্র-ছাত্রীদের চিহ্নিত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর গত বুধবার সকল সরকারি-বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় পাঠানো অফিস আদেশে এ নির্দেশ দিয়েছে।

অধিদফতরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক এসএম ওয়াহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত আদেশ বলা হয়েছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দৈবচয়নের মাধ্যমে ডোপ টেস্ট ও নিয়মিত মনিটরিংয়ের মাধ্যমে মাদকাসক্ত ছাত্র-ছাত্রীদের চিহ্নিত ও অভিভাবকদের সংশ্লিষ্টতায় তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা ও এক্ষেত্রে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে আসক্তি নিবৃত করতে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

শাস্তি হিসেবে উচ্চ শ্রেণীতে উন্নীতকরণ বন্ধ রাখা, এমনকি বহিস্কার পর্যন্ত করা যেতে পারে। এ সব সিদ্ধান্ত প্রতিষ্ঠান প্রধান বা সংশ্লিষ্ট কমিটি নেবে বলে আদেশে বলা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এখনও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে মাদকের অপব্যবহার রোধে সচেতনতা ও উদ্ধুদ্ধকরণের জন্য মাদক বিরোধী কমিটি গঠন করা হয়নি, সেখানে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান হবেন এ কমিটির সভাপতি। সদস্য হিসেবে থাকবেন শিক্ষক প্রতিনিধি, অভিভাবক প্রতিনিধি, ছাত্র প্রতিনিধি। ক্রীড়া শিক্ষক এ কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন।

মাদক বিরোধী কমিটি প্রতিমাসে সুবিধামত সময়ে কমপক্ষে একবার সভায় বসবে উল্লেখ করে আদেশে বলা হয়েছে, প্রতিমাসের প্রথম সপ্তাহে একটি ও তৃতীয় সপ্তাহে একটি উদ্ধুদ্ধকরণ সভা আহ্বান করবে। এ সভায় ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকদের উপস্থিত থাকার আহ্বান জানাতে হবে। এ সভায় আগের সভার গ্রহণ করা কার্যক্রম বাস্তবায়নের বিষয়ে মূল্যায়ন করতে হবে। মূল্যায়ন প্রতিবেদন প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে দাখিল, সেই সঙ্গে পূনরায় পরবর্তী কর্মসূচি প্রণয়ন করবে, যা চলমান প্রক্রিয়া হবে।

ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদানের তালিকায় মাদকদ্রব্যের ক্ষতিকর প্রভাব তুলে ধরে পাঠ্য বিষয় সংযোজন, বিষয়ে ক্লাস নেওয়াসহ মনিটরিং ও ফলোআপ করার জন্য প্রতিষ্ঠানভিত্তিক একজন শিক্ষককে দায়িত্ব দিতে হবে বলেও অফিস আদেশে বলা হয়েছে।

সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাস এলাকায় মাদকদ্রব্যের ক্ষতিকর দিক তুলে ধরে মাদক বিরোধী স্থায়ী ব্যানার, ফেস্টুন স্থাপন ও পোস্টার লাগানো এবং নিয়মিতভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে এ বিষয়ে স্টিকার, বুকলেট ও লিফলেট বিতরণ করতে হবে।

প্রতিষ্ঠান প্রধান মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কাছের অফিস থেকে উপকরণসহ কারিগরি সহায়তা নিতে পারবেন বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই