মেইন ম্যেনু

মানবতাবিরোধী মামলার আসামি আমজাদ আলীর মৃত্যু

মানবতাবিরোধী মামলার আসামি আমজাদ আলী (৯০) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের কারারক্ষী জাকারিয়া জানান, কারাগার থেকে ২৭ আগস্ট আমজাদ আলীকে ঢামেকে ভর্তি করা হয়। তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ায়।

এর আগে মানবতাবিরোধী মামলায় গ্রেফতার হওয়া আমজাদ আলী ও রিয়াজ ফকিরকে ঢাকায় আনার পথে পুলিশের প্রিজন ভ্যানটি গাজীপুরের ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের কাছে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। উদ্যানের ২ নং গেটের সামনে এলে প্রিজন ভ্যানের সঙ্গে যাত্রীবাহী একটি বাসের সংঘর্ষ হয়। এতে মানবতাবিরোধী মামলার দুই আসামিসহ চার পুলিশ আহত হয়। এ ঘটনার পর আমজাদ আলীকে ঢামেকে ভর্তি করা হয়। এর পর আরো কয়েকবার এখানে এনে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। সর্বশেষ ২৭ আগস্ট আবারও এখানে ভর্তি হন তিনি।

উপজেলার ভালুকজান গ্রামের শহীদ তালেব মণ্ডলের ছেলে খোরশেদ আলীর দায়ের করা মামলার অভিযোগে জানা যায়, তালেব মণ্ডলকে আখিলা নদীর ব্রিজের ওপর দাঁড় করে গুলি করে হত্যা করে রাজাকাররা।এ হত্যাকাণ্ডের নেতৃত্ব দেন স্থানীয় রাজাকার প্রধান আমজাদ আলী ও আলবদর বাহিনীর প্রধান রিয়াজ ফকির।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে আমজাদ আলী ও রিয়াজউদ্দিন ফকির হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ, লুটপাটসহ নানা মানবতাবিরোধী অপরাধে নেতৃত্ব দেন। আছিম যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাসহ বহু মানুষকে হত্যা এবং পাটিরায় দুই হিন্দু নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।






মন্তব্য চালু নেই