মেইন ম্যেনু

মানুষ খুনে ‘তিন নম্বর’ স্থান পেয়েছে ভুল চিকিৎসা !

চিকিত্‍সায় গলদ। এই অভিযোগে মাঝে-মধ্যেই বিক্ষোভে উত্তাল হয় এ রাজ্যের একাধিক সরকারি হাসপাতাল। কিন্তু সাম্প্রতিক সমীক্ষা জানাচ্ছে, শুধু এ রাজ্য বা আমাদের দেশ নয়, চিকিত্‍সায় ত্রুটির ছবিটা গোটা বিশ্বেই উদ্বেগজনক।

মৃতের সংখ্যার বিচারে আমেরিকায় ভুল চিকিত্‍সা মৃত্যু কারণ হিসেবে রয়েছে তিন নম্বরে। অর্থাত্‍ ভুল চিকিত্‍সাকেও যদি একটা অসুখ হিসেবে ধরা হয়, তবে অসুখে মৃতদের মধ্যে ২০১৩-য় সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে হৃদরোগে (৬.১১ লাখ)। পরের স্থানে রয়েছে ক্যানসার (৫.৮৫ লাখ)। তিন নম্বরে স্থান পেয়েছে ভুল চিকিত্‍সা (২.৫১ লাখ)।

বুধবার এই সমীক্ষার ফল প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নাল। আমাদের দেশে এরকম কোনো সমীক্ষা করা না হলেও হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির সমীক্ষা জানাচ্ছে যে ভুল চিকিত্‍সার কারণে ২০১৩-য় গোটা বিশ্বে জখম হয়েছেন মোট ৪৩০ লক্ষ মানুষ। তার মধ্যে ভারতে এই সংখ্যা ৫২ লাখ। শরীরের ভুল অংশে অস্ত্রোপচার বা ওষুষের ওভারডোজ কখনো মৃত্যু, আবার কখনো গুরুতর অসুস্থতা ডেকে আনে। যার ব্যতিক্রম নয় আমাদের দেশও।

তবে গাফিলতিই যে সব সময় ভুল চিকিত্‍সার কারণ, তা মানতে নারাজ মেডিক্যাল কাউন্সিল। স্ত্রীরোগবিশেষজ্ঞ ডা. নিখিল দাতার জানাচ্ছেন, “রাত তিনটার সময় আইসিইউ-তে চিকিত্সাধীন কোনো রোগীর যদি অসুস্থতা বাড়ে, তখন কোন ইঞ্জেকশনটা তাকে দেবে তা ঠিক করতে একজন নার্স বড়জোর পাঁচ সেকেন্ড হাতে পায়। এই সিদ্ধান্তটা নিতে একটু ভুলচুকই একজন মানুষের প্রাণ নিয়ে নিতে পারে।”






মন্তব্য চালু নেই