মেইন ম্যেনু

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে ৭০ কোটি ডলার ঘুষ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঋণে জর্জরিত রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ তহবিল ওয়ানএমডিবির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোম্পানি, ব্যাংক ও সরকারি সংস্থাগুলির মাধ্যমে এসব অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাবে জমা করা হয়েছে। মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন । একই সঙ্গে তার কার্যালয় থেকে এ ঘটনাকে রাজনৈতিক স্যাবোটাজ চেষ্টার অংশ বলে দাবি করা হয়েছে।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, নাজিবের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে ৫ দফায় ৭০ কোটি ডলার জমা হয়েছে। এর মধ্যে দুই দফায় সবচেয়ে বড় অঙ্কের লেনদেন হয়েছে। ২০১৩ সালের মার্চে নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালে প্রথম দফায় ৬২ কোটি এবং দ্বিতীয় দফায় ৬ কোটি ১০ লাখ ডলার জমা করা হয়েছে। এসব অর্থ ঋণভারে জর্জরিত রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ তহবিল ওয়ানএমডিবির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোম্পানি, ব্যাংক ও সরকারি সংস্থাগুলির মাধ্যম হয়ে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে। তবে এই অর্থের মূল উৎস সম্পর্কে জানাতে পারেনি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে।

এতে বলা হয়, সুইস ব্যাংকের মাধ্যমে আবু ধাবির রাষ্ট্রীয় তহবিলের মালিকানাধীন ব্রিটিশ ভার্জিন আই্ল্যান্ডে নিবন্ধিত একটি কোম্পানির থেকে সুইস ব্যাংক হয়ে এই টাকা প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে।

তবে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘ ব্যক্তিগত কাজে প্রধানমন্ত্রী কোন তহবিল থেকে অর্থ নেননি। প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক বিরোধীরা তার সম্পর্কিত নথি ও তথ্য মেনে নিতে চাইছে না। তারা রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের জন্য তারা অব্যাহতভাবে তার ওপর ভিত্তিহীন কলঙ্ক ও গুজব লাগাতে চাইছে।’

যেই ওয়ানএমডিবিকে নিয়ে এতো কথা সেই প্রতিষ্ঠানটিও এ বিষয়ে জানিয়েছে, এ ধরণের কোন লেনদেন সম্পর্কে তাদের কিছুই জানা নেই। এছাড়া এ সংক্রান্ত কোন নথিও তার দেখেনি।






মন্তব্য চালু নেই