মেইন ম্যেনু

মাশরাফির প্রথম ও ভিন্ন অভিজ্ঞতা

আগুণঝরা বোলিংয়ে নিজের দলকে বহু ম্যাচ জেতালেও ব্যাটিংয়ে মঙ্গলবারই প্রথম দলকে জিতিয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। এটা তার ক্রিকেটীয় ক্যারিয়ারের প্রথম অভিজ্ঞতা।

একই সঙ্গে দলকে জিতিয়ে ম্যাচ ‘ফিনিশ’ করার রাজসিক অভিজ্ঞতার সঞ্চারও হয়েছে তার। এটা তার ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা। সব মিলিয়ে মঙ্গলবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পুরোটা সময় ছিলই মাশরাফিময়।

চিটাগং ভাইকিংসকে সাত উইকেটে হারায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। মাশরাফি দলের হয়ে ৫৬ রানের পাশাপাশি বল হাতে নেন এক উইকেট। পাঁচ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে মারলন স্যামুয়েলসের সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন ১২৩ রানের জুটিও গড়েন মাশরাফি।

ম্যাচ শেষে মাশরাফি তার ব্যাটিং নিয়ে বলেন,‘ক্লাব ক্রিকেটে এর আগেও অনেক ফিফটি করেছি। কিন্তু ‘ফিনিশ’ করতে হবে এরকম চিন্তা কোনো সময় করিনি। শুরু করি কিন্তু শেষ সময় গিয়ে আউট হয়ে যাই। আজকে ফিনিশ করতে পেরে ভালো লাগছে। একটু ভিন্ন লাগছে।’

অন্যদিকে ব্যাটিং করে ম্যাচ জেতানো প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন,‘সচরাচর ব্যাটিং করে ম্যাচ জেতালে আমার খুব বেশি অনুভূতি কাজ করে না। কারণ আমার কাজ তো অন্যটা। কিন্তু তারপরও অনেক ভালো লাগছে। কারণ এটা প্রথম।’

সচরাচর লোয়ার অর্ডারে ব্যাটিং করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। নম্বরটা সাত কিংবা আট। তবে গত কয়েক ম্যাচ ধরে ব্যাট হাতে নিয়মিত রান পাওয়ার পাশাপাশি দলের প্রয়োজনে মূল্যবান রানও করছেন। এ নিয়ে আলাদা কাজ করছেন বলে দাবি তার।

মাশরাফি বিন মর্তুজার ভাষ্য,‘ব্যাটিংয়ে একটা জিনিস অনুশীলন করছি। যদি ভালো হয় তো ভালো। টি-টোয়েন্টি আসলে খেলাটাই্ এ রকম। কোনোদিন ভালো যায়, কোনোদিন খারাপ যায়। আমি আজকে যখন কোচকে বলেছি যে উপরে ব্যাটিং করবো তখন, সেও সমর্থন করেছে। আমি আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। তবে ভাগ্য ছিল গুরুত্বপূর্ণ। আউট হয়ে যেতে পারতাম। তবে আমি বিশ্বাস করি ভাগ্য বীরদেরই পাশে থাকে। আমার কাছে ওই সিদ্ধান্ত খুব সাহসী ছিল।’






মন্তব্য চালু নেই