মেইন ম্যেনু

মাহফুজ আনামের মাথায় পিস্তল রাখা হয়েছিল : হান্নান শাহ

ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামের মাথায় পিস্তল রেখে সংবাদ ছাপাতে বাধ্য করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ।

আজ বুধবার সকালে রাজধানীর ফটো জার্নালিস্ট মিলনায়তনে পিলখানা ট্র্যাজেডি নিয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিএনপি নেতা এ মন্তব্য করেন। একইসঙ্গে মাহফুজ আনামকে যাঁরা লেখা ছাপাতে বাধ্য করেছেন তাঁদেরও বিচার করার দাবি জানিয়েছেন তিনি। পিলখানা ট্র্যাজেডি নিয়ে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) আয়োজিত আলোচনায় উঠে আসে চলমান নানা প্রসঙ্গ।

হান্নান শাহ বলেন, মাইনাস টু ফর্মুলার হোতা দুই বড় রাজনৈতিক দলের সংস্কারপন্থী নেতারাই।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, বর্তমান সরকারই বলেছিল এক-এগারোর সরকার ছিলে তাদেরই আন্দোলনের ফসল। কিন্তু এত বছর পর এসে এক-এগারো নিয়ে সরকারের এমন তোড়জোড়ের আসল কারণ জানতে চান তিনি। তাঁর প্রশ্ন, সাংবাদিকদের শাস্তির ভয় দেখিয়ে সরকার কী বোঝাতে চায়?

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকে ইঙ্গিত করে হান্নান শাহ বলেন, ‘উনি আনাম সাহেব এবং অন্যদের বিচার করতে চান। আনাম সাহেবের বিচার করবেন, তাঁকে কাগজপত্র এবং ওই তথ্য দিয়েছে কারা? কারা উনার হয় মাথায় পিস্তল অথবা পেছনে মেজর সাহেব রেখে বলেছেন, এটা ছাপাতে হবে। তাদেরও বিচার করতে হবে। আপনার দলের মধ্যে অনেক বড় বড় নেতা, যাঁরা এখন মন্ত্রী আছেন, আনাম সাহেব যাঁদের বলেছেন, তাঁদের কথায় আপনার বিরোধিতা করেছিলেন এবং তথাকথিত মাইনাস টু ফরমুলা বাংলাদেশের মানুষকে জানিয়েছিলেন।’

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টকশোতে মাহফুজ আনাম বলেন, এক-এগারোর সময় শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি খবর ছেপে তিনি ভুল করেছেন। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় মাহফুজ আনামকে আটকের দাবি জানান। পরে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে সারা দেশে ডেইলি স্টার সম্পাদকের বিরুদ্ধে অর্ধ শতাধিক মামলা করা হয়। সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মাহফুজ আনামের বিচার করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই