মেইন ম্যেনু

মাহমুদার শরীরে ৮ কোপ, বাম চোখে একটি গুলির চিহ্ণ

চট্টগ্রামে নিহত পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আকতারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুর শরীরে ধারালো অস্ত্রের ৮টি কোপের চিহ্ন এবং বাম চোখের ওপরে গুলির চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

রোববার সকাল পৌনে ৭টার দিকে নগরীর জিইসি মোড়ের কাছে ও আর নিজাম রোডে মোটরসাইকেল আরোহীদের ছুরিকাঘাত ও গুলিতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। মাহমুদা তার ছেলেকে স্কুলের বাসে তুলে দিতে গিয়েছিলেন।

পুলিশের ধারণা, জঙ্গিবিরোধী অভিযানে এসপির সক্রিয় ভূমিকার কারণে তার স্ত্রীকে হত্যা করা হতে পারে। সুরতহাল প্রতিবেদনে মাহমুদা খানমের স্ত্রীর শরীরে ছুরিকাঘাতের আটটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার বুকে দুটি, পিঠে দুটি, বাঁ হাতে দুটি ও কনুইতে দুটি ছুরিকাঘাত করা হয়। বুকের ছুরিকাঘাতের আঘাত আধা ইঞ্চি পর্যন্ত গভীর। আর কপালে বিদ্ধ গুলিটি দেড় ইঞ্চি মতো গভীরে ঢোকে।

হত্যাকাণ্ডের সময় ঘটনাস্থলে মায়ের সঙ্গে থাকা ছেলে আক্তার মাহমুদ মাহির (৭) সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘ওই যে গুণ্ডা, আম্মুকে মারসে। ওরা হোন্ডা করে ওখানে দাঁড়ায়সিল। ওখানে তিনজন ছিল। তারপর একজন দৌড়ায়ে আইসা আম্মুকে নিচে ফালাই দিয়ে চাকু ঢুকাই দিসিল। আরেকজন গুলি মেরে মেরে ফেলসে। তারপর আম্মুর মুখের থেকে রক্ত বের হচ্ছিল।’

বাবুল আক্তারের ব্যাচমেট র‌্যাব-১ এর কর্মকর্তা এসএম তানভীর আরাফাত ঢাকা থেকে জানান, স্ত্রীর দুঃসংবাদ শোনার পর থেকে বাবুল আক্তার ঘন ঘন অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছেন। তারপরও তাকে সান্ত্বনা দিয়ে চট্টগ্রাম পাঠানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই