মেইন ম্যেনু

মায়ের কষ্ট দূর করতে একাই কুয়া খুঁড়ল ছেলে

গ্রীষ্মে খাবার পানির জন্য প্রতিদিন প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে যান মা। জন্ম থেকেই একই দৃশ্য প্রতিদিন দেখে আসছে ছেলে পবন বিনায়ক হেগড়ে। এখন তার বয়স ১৭ বছর আর মায়ের ৪৩। এই বয়সেও পানির জন্য চলতে হয় তিন তিনে ছয় কিলোমিটার পথ।

মায়ের প্রতিদিনকার এই কষ্ট সহ্য করতে না পেরে ছেলে এক অবিশ্বাস্য কাজ করে ফেলল। একাই খুঁড়ে ফেলল ৫৫ ফুট গভীর কুয়া। আর ছেলের এই কাজে ধন্য ধন্য রব পড়ে গেছে ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের ভেরুলুপ্পি জেলার সতিশ্বরী এলাকায়।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার কাছে পবন জানায়, প্রতিদিন কাজ থেকে ফেরার পরে মা যেতেন অনেক দূরে একটি গ্রামে কুয়া থেকে জল আনতে। কোনোদিন পেতেন, কোনোদিন পেতেন না। এদিকে তাদের সেই আর্থিক সচ্ছলতাও নেই যে বাড়িতে কুয়া খুঁড়বে। এই সবই দীর্ঘদিন ধরে নিজের চোখে দেখেছে পবন। আর ধীরে ধীরে নিয়েছে মানসিক প্রস্তুতি।

মায়ের কষ্ট দূর করার জন্য একদিন সে নিজেই সিদ্ধান্ত নেয় কুয়া খোঁড়ার। প্রতিদিনই এক ফুট করে মাটি খুঁড়তে থাকে পবন। এমনিভাবে একদিন ৪৫ ফুট গভীর গর্ত খুঁড়ে ফেলে সে। কিন্তু খরাপ্রবণ ওই অঞ্চলে এটুকু খোঁড়ার পরও পানির দেখা পাওয়া যায়নি।

কিন্তু হাল ছাড়েনি পবন। আরো মাটি খুঁড়তে থাকে সে। ৪৫ দিনে ৫৩ ফুট মাটি খোঁড়ার পরে অবশেষে পানির দেখা মেলে। শেষ পর্যন্ত ৫৫ ফুট গভীর কুয়া খুঁড়ে ফেলে পবন। আর মাটির এইটুকু নিচে পাওয়া গেল পর্যাপ্ত পানি।

মায়ের জন্য পানির ব্যবস্থা করার পর সেনাবাহিনীতে যোগদানের অপরিসীম ইচ্ছে পবনের। সেবা করতে চায় দেশের। তার এই সাফল্যে যখন প্রতিবেশী, বন্ধুমহলে খুশির আমেজ, ঠিক সেই সময় আরো একটা নিঃশব্দ শপথ নিয়ে ভবিষ্যতের দিকে একটু একটু করে এগোতে শুরু করে দিয়েছে পবন।






মন্তব্য চালু নেই