মেইন ম্যেনু

‘মা দুর্গা’ কি বৃষ্টি ভালবাসেন? কী বললেন পায়েল?

তিনি টেলিভিশনের মা দুর্গা, কিন্তু বাস্তবে মিষ্টি অভিনেত্রী পায়েল। বৃষ্টি তাঁকে কেমন টানে? কী কথা বলে তাঁর কানে কানে? এবেলা.ইন-কে জানালেন পায়েল…

মিষ্টি অভিনেত্রী পায়েল এখন বাংলা টেলিভিশনের ‘মা দুর্গা’। ব্যস্ততার ফাঁকেই বৃষ্টি নিয়ে দিলেন ছোট্ট সাক্ষাৎকার—

প্র: বৃষ্টি ভালবাসো?

পায়েল: অসম্ভব ভালবাসি।

প্র: বৃষ্টিতে কী করো?

পায়েল: আমি এখনকার একটা এক্সপেরিয়েন্স আগে বলি। আমরা যেখানে শ্যুটিং করি সেটা তো নন-এসি ফ্লোর। বাইরে যদি ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয় তো ফ্লোরের মধ্যে আমরা ফিল করি যেন ৪৫ ডিগ্রি। এতটা গরম হয়ে থাকে ফ্লোরটা। বৃষ্টি নামলে আস্তে আস্তে সেই ভ্যাপসা গরমটা কাটতে থাকে। আমাদের সকলের তখন খুব আনন্দ হয়।

প্র: বাড়িতে থাকলে বৃষ্টি কীভাবে উপভোগ করো?

পায়েল: বৃষ্টি পড়লেই আমি বারান্দায় চলে যাই। বৃষ্টি দেখতে খুব ভালবাসি। কয়েক ফোঁটা বৃষ্টির জল গায়ে মাখি।

প্র: বৃষ্টিতে ভেজো না?

পায়েল: আসলে আমার পেশার কারণে এখন আর ঠিক ভেজা হয় না। তবে আগে খুব ভিজতাম। বৃষ্টি পড়লেই ছাদে চলে যেতাম। বন্ধুরা সঙ্গে থাকলে তো খুবই মজা হতো। তবে কেউ না থাকলেও একা একাই ভিজতাম। বিশেষ করে প্রথম বৃষ্টিটা চট করে মিস করতাম না।

প্র: তোমার স্বামী গোগোলও কি বৃষ্টি ভালবাসে?

পায়েল: হ্যাঁ ভালবাসে, কিন্তু ও একটু চাপা স্বভাবের মানুষ তো। তাই খুব একটা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে না। কিন্তু যে কোনও রোম্যান্টিক মানুষ মানেই বৃষ্টি ভালবাসবে, এটা খুব স্বাভাবিক।

প্র: তোমাদের দু’জনের বৃষ্টির কোনও অভিজ্ঞতা?

পায়েল: তখন আমাদের বিয়ে হয়নি। সদ্য সদ্য প্রেম করছি। একদিন মনে আছে রাসবিহারীর মোড়ে আমাদের দেখা করার কথা ছিল। আমি শ্যুটিং থেকে ফিরছিলাম আর ও আমার জন্য অপেক্ষা করছিল। মেট্রোর সামনে রেলিংয়ের উপর হাত রেখে ও দাঁড়িয়েছিল। ঝির ঝির করে বৃষ্টি পড়ছিল তখন। রাস্তা পেরনোর আগে দেখছিলাম। অদ্ভুত ভাল লাগছিল তখন। ওই মুহূর্তটা কখনও ভুলব না।

প্র: খিচুড়ি খেতে ভালবাসেন?

পায়েল: না। একটু অবাক লাগবে শুনলে, কিন্তু বৃষ্টি মানেই খিচুড়ি, এই ব্যাপারটা ঠিক আমার ক্ষেত্রে নয়। আমার বরং বৃষ্টি পড়লে একটু চটপটা কিছু খেতে ভাল লাগে। ফুচকা হতে পারে বা চাট হতে পারে।

প্র: বৃষ্টির গন্ধ কেমন লাগে?

পায়েল: ভীষণ ভাল লাগে। বৃষ্টি পড়লে সোঁদামাটির যে গন্ধটা আসে, আমার তো দারুণ লাগে। অনেকটা ইনটক্সিকেটিং লাগে।

প্র: তোমাকে কখনও বৃষ্টির মধ্যে শ্যুটিং করতে হয়েছে?

পায়েল: প্রায় প্রত্যেক বছরই করতে হয়, কিন্তু মজার ব্যাপার হল আমি আজ পর্যন্ত একবারও বর্ষাকালে বৃষ্টির শ্যুট করিনি। যত বৃষ্টির দৃশ্যের শ্যুটিং, সবই হয় শীতকালে। শুধু আমি নয়, এখানকার প্রায় সব নায়িকাই একই কথা বলবে। গোটা গরমকাল, বর্ষাকাল, শরৎকাল কেটে যায়, সেই শীতকালে গিয়েই যত বৃষ্টির শ্যুটিং। আর বেছে বেছে যেদিন কনকনে ঠান্ডা, সেদিনই যেন ওই শ্যুটিংগুলো পড়ে। খুব কষ্ট হয় তখন।

প্র: তোমার প্রিয় বৃষ্টির গান কী?

পায়েল: রেন ড্রপস আর ফলিং অন মাই হেড…

প্র: আর প্রিয় বলিউড রেন সিকোয়েন্স?

পায়েল: রাজ কপূর আর নার্গিসের সেই বিখ্যাত গান— ‘প্যার হুয়া ইকরার হুয়া’। অত সুন্দর রোম্যান্টিক গান আর হয়নি। ওই একটা ছাতার তলায় দু’জনের কাছাকাছি আসা, এমন সুন্দর একটা ভিস্যুয়াল… অপূর্ব।






মন্তব্য চালু নেই