মেইন ম্যেনু

মিঠাপুকুরে এনায়েতপুর মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে ছাত্রী শ্লীলতাহানীর অভিযোগ

মোঃ শামীম আখতার, উপজেলা প্রতিনিধি, মিঠাপুকুর (রংপুর)॥ রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার এনায়েতপুর দ্বি-মুখী দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্টের বিরুদ্ধে ছাত্রী শ্লীলতাহানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই মাদরাসার ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্রী শ্লীলতাহানীর অভিযোগ এনে মিঠাপুকুর থানায় এজাহার দিয়েছেন ছাত্রীর নানা।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার কাফ্রিখাল ইউনিয়নের এনায়েতপুর দ্বি-মুখী দাখিল মাদরাসার সুপার হারুন-অর রশীদ গত ২৯ ফেব্রুয়ারী মাদ্রাসা চলাকালিন সময়ে ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে নিজের কক্ষে ডেকে নিয়ে আসেন। এসময় তিনি ওই ছাত্রীকে টাকার প্রলোভন দেখিয়ে গালে চুমু দেওয়ার প্রস্তাব দেন। কিন্তু এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে জোর করে শ্লীলতাহানি করেন। পরে ঘটনাটি ওই ছাত্রী পরিবারের লোকজনকে জানায়। পরিবারের লোকজন মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটিকে বিষয়টি জানিয়ে ওই ছাত্রীর নানা বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় একটি এজাহার দাখিল করেন।

অভিভাবক নুরুল ইসলাম বলেন, এর আগেও সুপারিনটেনডেন্টের বিরুদ্ধে এ ধরনের একাধিক অভিযোগ উঠেছিল। বিষয়গুলো বেশিদুর যেতে না দিয়েই আমরা স্থানীয়ভাবে সুরাহা করেছি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মাদ্রাসার কয়েকজন শিক্ষক বলেন, দিন দিন মাদরাসার শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমে যাচ্ছে। সুপারিনটেনডেন্টের এরকম চরিত্রের জন্য মাদ্রাসার সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে। এনায়েতপুর দ্বি-মুখী দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিরি সভাপতি ডা. ইউনুস আলী বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ওই মেয়ে ও অভিভাবকের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। আগামি মিটিংয়ে সুপারিনটেনডেন্টের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। অভিযুক্ত মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট হারুন-অর-রশীদ বলেন, আমার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা। (প্রতীকী ছবি)






মন্তব্য চালু নেই