মেইন ম্যেনু

পেট্রোলবোমা হামলা মামলাসহ ১২ মামলার আসামী

মিঠাপুকুরে জেলহাজত থেকে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন জামায়াত নেতা!

মোঃ শামীম আখতার, উপজেলা প্রতিনিধি, মিঠাপুকুর (রংপুর): রংপুরের মিঠাপুকুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জেলহাজতে থাকা একজন প্রভাবশালী নেতা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। তিনি ২০১৫ সালের ১৪ জানুয়ারী রাতে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের মিঠাপুকুরের জায়গীর বাতাসন ফতেপুর নামকস্থানে যাত্রী নৈশকোচে পেট্রল বোমা হামলায় নারী শিশুসহ ৬ হত্যাসহ এক ডজন মামলার আসামী। তিনি উপজেলা জামায়াতের সুরা সদস্য ও কাফ্রিখাল ইউনিয়ন আমীর জয়নাল আবেদীন।

উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের মধ্যে ৭টিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৩ এপ্রিল। কাফ্রিখাল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ মোট ৯ জন প্রার্থী। এর মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জামায়াতের নেতা জয়নাল আবেদীন মাস্টার মনোনয়নপত্র জমা করেছেন। তিনি হত্যা, অগ্নিসংযোগ, নাশকতাসহ এক ডজন মামলার আসামী। পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে তিনি রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন। জেলহাজতে থেকেও চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় ওই ইউনিয়নে ব্যাপক মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সালাহ্ উদ্দিন বলেন, যোগ্যতা থাকলে জেল কোডের বিধান অনুয়ায়ী যে কেউ মনোনয়ন নিতে পারে। সে নিয়ম অনুযায়ী জামায়াত নেতা মনোনয়ন নিয়েছেন।

মিঠাপুকুর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর বলেন, ২০১৫ সালের ১৪ জানুয়ারী রাতে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের মিঠাপুকুরের জায়গীর বাতাসন ফতেপুর নামকস্থানে যাত্রীবাহী নৈশকোচে পেট্রল বোমা ছোঁড়ে দুবৃত্তরা। এতে, কুড়িগ্রামের উলিপুর থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী খলিল এক্সক্লুসিভ পরিবহন নামে ওই বাসে যাত্রীদের মধ্যে নারী ও শিশুসহ ৬ জন দগ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন অন্তত ৪০ জন। এ ঘটনায় মিঠাপুকুর থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে একটি মামলা হয়। ৮৭ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৪০ থেকে ৫০ জনকে আসামী করা হয়। ওই বছরের ১৭ জুলাই এ ঘটনায় ১৩২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। বর্তমানে আদালতে শুনানী চলছে।






মন্তব্য চালু নেই