মেইন ম্যেনু

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সালাহ্উদ্দিন :

‘মিঠাপুকুরে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে, আগামীতেও অব্যাহত থাকবে’

মোঃ শামীম আখতার, উপজেলা প্রতিনিধি, মিঠাপুকুর (রংপুর)॥ ‘বাল্যবিয়ে বন্ধে নিকাহ্ রেজিস্টারদের জোরালো ভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও, গ্রাম পুলিশদের বাল্যবিয়ে বন্ধে খবর দেওয়া জন্য বলা হয়েছে। ৫শ ৭৮ জন মসজিদের ইমামদের নিয়ে বাল্য বিয়ের কুফল সর্ম্পকে সাধারন জনগনের মাঝে সচেনতনা সৃষ্টিতে প্রশিক্ষণ প্রদান করেছি। ভার্মি কম্পোস্ট মডেল হয়ে দাঁড়িয়েছে মিঠাপুকুরে। পশুপালনের জন্য ৫টি সরকারী ও ২৯টি বে-সরকারী উদ্যোগে কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র খুলে গৃহপালিত পশুপালনের উপর জোর দেওয়া হয়েছে।’ বলছিলেন মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোহাম্মদ সালাহ্উদ্দিন।

সোমবার দুপুরে সরকারের সাফল্য, অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা নিয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, কিশোরীদের জন্য লাবণ্য প্রকল্প, বিনামুল্যে হাড়িভাঙা আম ও হাজারী কাঁঠালের চারা বিতরন ও টিস্যু কালচার কলাচাষ প্রসার, ৩শ ৮৭জন ভিক্ষুককে সরকারীভাবে ভাতা প্রদান, এসিল্যান্ড ও উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে হেল্প ডেস্ক স্থাপন, কেন্দ্রীয় কবরস্থান নির্মান করা হয়েছে গত ৭ মাসেই। এছাড়াও, সরকারের নানা উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড স্বচ্ছতা ও দক্ষতার সাথে সম্পন্ন করা হয়েছে।

মিঠাপুকুর দেশের সর্ববৃহত উপজেলা। এই উপজেলা সরকারী কর্মকর্তাদের কাছে অভিযোগ ও পরামর্শ প্রদানের জন্য অনলাইনে একটি ওয়েরসাইট ও এপস্ চালু করার প্রক্রিয়া চলছে। এতে করে ভুক্তভোগীরা উপজেলায় না এসেও অনলাইনের মাধ্যমে তাদের অভিযোগ ও পরমর্শ জানাতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে ও উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায় প্রেস ব্রিফিংয়ে বক্তব্য দেন রংপুর জেলা সিনিয়র অফিসার হুমায়ুন কবীর, সহকারী তথ্য অফিসার আলমগীর কবির, মিঠাপুকুর প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রদীপ কুমার গোস্বামী, সাবেক সভাপতি আবুল হাশেম মন্ডল প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই