মেইন ম্যেনু

ঘাতক স্বামী আটক

মিঠাপুকুরে যৌতুকের বলি শরিফা

মোঃ শামীম আখতার, উপজেলা প্রতিনিধি, মিঠাপুকুর (রংপুর) : রংপুরের মিঠাপুকুরে যৌতুকের দায়ে এক সন্তানের জননী শরিফা বেগমকে (২৫) হত্যা করেছেন স্বামী। ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহের জন্য লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখে শ্বশুড়বাড়ীর লোকজন। পরে এলাকাবাসি ঘাতক স্বামীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বুজরুক শেরপুর গ্রামে। ঘাতক স্বামী হারেছ মিয়া আব্দুল হাইয়ের ছেলে। এ ঘটনায় মিঠাপুকুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসি সুত্রে জানা গেছে, ৪ বছর আগে পূর্ব মুরাদপুর গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে শরিফা বেগমের সাথে বিয়ে হয় বুজরুক শেরপুর গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে হারেছ মিয়ার। বিয়ের পর থেকে শ্বশুড় বাড়ীর লোকজন যৌতুকের জন্য চাপ প্রদান করে শরিফা বেগমকে। তিনি যৌতুকের টাকা নিয়ে আসতে অস্বীকৃতি জানালে বিভিন্ন সময় মানসিক ও শারিরিক নির্যাতন করা হতো। এরই জের ধরে সোমবার দুপুরে হারেছ মিয়া বেধরক মারপিট করে শরিফা বেগমকে। মারপিটের এক পর্যায়ে শরিফা বেগম মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহের জন্য শ্বশুড়বাড়ির লোকজনেরা শরিফার লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখে। এলাকাবাসি লাশ দেখতে পয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এসময় আটক করা হয় স্বামী হারেছ মিয়াকে।

এ ঘটনায় শরিফা বেগমের ভাই শাকিল মিয়া বাদি হয়ে মিঠাপুকুর থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করেন।

মিঠাপুকুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবীর বলেন, ঘাতক স্বামীকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যার কথা স্বীকার করেছেন।






মন্তব্য চালু নেই