মেইন ম্যেনু

মিতু হত্যাকাণ্ড: পুরো চিত্র পুলিশের হাতে

৯ জন ভাড়াটে খুনির মাধ্যমে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যাকাণ্ড বাস্তবায়ন করা হয়েছে। তবে এ হত্যাকাণ্ডের পুরো পরিকল্পনা করে একজন ব্যক্তি। সরাসরি অংশ নিয়েছে চারজন এবং পাঁচজন আশপাশেঅবস্থান নিয়ে সহায়তা করে। হত্যাকাণ্ডের পুরো চিত্র এখন পুলিশের হাতে এসে গেছে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

পুলিশের একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত পাঁচজন এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। তবে মিত্যু হত্যাকাণ্ডে জঙ্গি সম্পৃক্ততা থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেননি কোনো পুলিশ কর্মকর্তা। এছাড়া মিতুকে হত্যা করতে কমপক্ষে পাঁচ দফা চেষ্টা চালানোর পর হত্যাকারীরা সফল হয়েছে বলে পুলিশ তদন্তে নিশ্চিত হয়েছে।

চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার সরাসরি কোনো মন্তব্য না করে বলেছেন, আমরা শিগগিরই এ ব্যাপারে আপনাদের ভালো খবর দিতে সক্ষম হব। এ জন্য আরেকটু ধৈর্য ধরতে হবে।

তদন্তসংশ্লিষ্ট একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, মিতু হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নিয়ে টরসাইকেলে পালিয়ে যাওয়া সেই তিন যুবকসহ মোট পাঁচ হত্যাকারী এখন পুলিশ হেফাজতে। হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা থেকে বাস্তবায়ন ও এর পরবর্তী অবস্থার পুরো চিত্র এখন পুলিশের হাতে এসে গেছে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই