মেইন ম্যেনু

মিনায় যা ঘটেছে তা প্রকাশ্য অপরাধ

মিনার রামিয়ে জামারাত বা শয়তানের প্রতীকী তিন স্তম্ভে পাথর নিক্ষেপের আনুষ্ঠানিকতা পালন-কেন্দ্র সংলগ্ন সড়ক ও সেতুগুলোর ডিজাইনার এবং প্রকৌশলী কিট স্টিল বলেছেন, মিনায় যা ঘটেছে তা একটি প্রকাশ্য অপরাধ। খবর-বাসস।

মিনা ট্র্যাজেডির পর কিট স্টিলকে একজন বাজে ডিজাইনার হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু তিনি এই অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বলছি যে মিনাগামী এইসব সেতু ও সড়কের ডিজাইনে কোনো সমস্যা নেই। ডিজাইনে সমস্যা থাকার অভিযোগ খুবই ভুল ধারণা।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘মিনায় মূল দুর্ঘটনাটি ঘটেছে ২০৪ নম্বর সড়কে। এই সড়কটিকে একমুখি সড়ক হিসেবে ডিজাইন করা হয়েছে। ভুলটা কোথায় হয়েছে? আসলে জনাকীর্ণ এই সড়কটিকে একইসময়ে আসা ও যাওয়ার পথ হিসেবে ব্যবহার করার ফলে দুই জনস্রোত বিপরীত দিক থেকে পরস্পরের মুখোমুখি হয়েছিল। শুধু যাওয়ার পথকে ফেরার পথ হিসেবেও ব্যবহারের ফলে ঘটেছে ওই মহাদুর্ঘটনা! কারণ যা-ই হোক না কেন এটা এক প্রকাশ্য অপরাধ।’

কিট এ প্রসঙ্গে আরও জানান, সৌদি স্বাস্থ্যমন্ত্রী খালিদ আল ফাল্লাহ অভিযোগ করেছেন, এই ট্র্যাজেডির কারণ হল হজযাত্রীরা সাইন-বোর্ডের পথ-নির্দেশনার দিকে লক্ষ্য করেননি! অথচ ২০৪ নম্বর সড়কটি একমুখী হওয়া সত্ত্বেও (সৌদি হজ-ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের নির্দেশে) সেটিকে দ্বিমুখী পথ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে! অথচ পাশেই অন্য একটি সড়ক রাখা হয়েছে হজযাত্রীদের ফেরার পথ হিসেবে ব্যবহারের জন্য।

কিট আরও জানান, আমি গতকাল আমার সহকর্মী ও বন্ধু মুদাউয়ি আর রাশিদের সঙ্গে কথা বলেছি ফোনে। সৌদি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই বন্ধু খুব কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ ও গবেষণা করেছেন। এরপর তিনি আমার সঙ্গে একমত হয়েছেন। তিনি বলেছেন, সৌদি সেনা ও কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু তারা কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে ছিলেন এবং ব্যাপক ভিড় সামলানোর জন্য কি করতে হবে বুঝতে পারছিলেন না।

কিট মেহর নিউজকে বলেছেন, ‘গত ২৫ বছরে এমন ট্র্যাজেডি আর ঘটেনি। আমি খুবই দুঃখিত। আমি অত্যন্ত জনাকীর্ণ পথ ২০৪ নম্বর সড়কের ব্যাপারে বার বার সৌদি কর্মকর্তাদের হুঁশিয়ারি দিয়েছিলাম।আমি বলেছিলাম এই সড়কে যেন ধারণ-ক্ষমতার তুলনায় বেশি হজযাত্রীদের ঢুকতে দেয়া না হয়। আর এই সড়কটিকেই টু-ওয়ে বা দ্বিমুখী করা হলে কি হতে পারে! আমি এখনও জানি না কেন তাকে দ্বিমুখী করা হয়েছে! আমি অনেক কথাই শুনেছি। কিন্তু নিশ্চিত না হয়ে সেসব বিষয়ে কিছু বলছি না। শুধু এটাই বলব যে: কারণ যা-ই হোক। এটা ছিল এক স্পষ্ট অপরাধ।’






মন্তব্য চালু নেই