মেইন ম্যেনু

মিরপুরের বাসায় একাই থাকতেন সাবিরা, এখন পর্যন্ত লাশ নিতে কেউ থানায় আসেনি

রাজধানীর মিরপুরের রূপনগরের একটি বাসা থেকে মঙ্গলবার সকালে পুলিশ সাবিরার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ তার লাশ নিতে আসছে না বলে জানা গেছে।

জানা যায়, ওই বাসায় সাবিরা একাই থাকতেন।গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন মডেল সাবিরা হোসাইন।

আত্মহত্যার আগে সাবিরা ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে ধারণা করা হচ্ছে, প্রেমঘটিত কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

আত্মহত্যার আগে নির্ঝর সিনহা রওনক নামের একজনের উদ্দেশে সাবিরা তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখেন, আমি তোমাকে দোষ দিচ্ছি না। এটা তোমার ছোট ভাইকে বলছি।

সে আমাকে যা ইচ্ছে বলেছে। আর বেস্ট পার্ট হলো, সে আমাকে বাসা থেকে বের করে দিয়েছে। আর আমার প্রশ্ন হলো, তোমার কি একটুও ফিল হয়নি?

সাবিরা লেখেন, আমাকে ব্যবহার করবে, সেক্স করবে আর আমি সরে যাব, এটা তো হতে পারে না। বিয়ের কথা বললে তোমার পরিবার অসুস্থ হয়ে যায়। আর সেক্সের কথা বললে সব ঠিক হয়ে যায়। ভালো আমি আত্মহত্যার চেষ্টা করছি।

নির্ঝরকে ট্যাগ করে সবশেষে তিনি লেখেন, আমার মৃত্যুর জন্য সে দায়ী। যদি আমি মারা যাই, তাহলে এর দায় তার।

আত্মহত্যার আগে সাবিরা তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস ও ভিডিও পোস্ট করেন। প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, ‘বিছানায় শুয়ে একটি ছুরি হাতে নিয়ে নিজের পেট ও গলা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন সাবিরা। তাকে মানসিকভাবে অনেক অস্থির বলে মনে হচ্ছিল।

শুরুতে বলতে শোনা যায় আমি কিচ্ছু করতে পারব না। তারপর হাতে একটি ছুরি নিয়ে বারবার পেটে ও গলায় চাপ দেওয়ার চেষ্টা করেন কিন্তু কিছু করতে পারেন না। বারবার বলতে শোনা যায়, কাটেও না। আমি ব্যর্থ। ওকে নেক্সট অ্যাটেম্পট নেব।

এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে, বেশ কয়েক দিন মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন সাবিরা। পারিবারিক ও প্রেমঘটিত কারণে সাবিরা আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সাবিরা বেশ কিছু পণ্যের স্থিরচিত্রে ও ফ্যাশন হাউসের মডেল হিসেবে কাজ করেছেন। শুধু মডেলিং নয়, উপস্থাপনাও করতেন তিনি। তার ফেসবুক প্রোফাইল থেকে জানা যায়, গানবাংলা টিভিতে কাজ করতেন এই মডেল।






মন্তব্য চালু নেই