মেইন ম্যেনু

মির্জাপুরের বিভিন্ন রাস্তায় বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতায় সীমাহীন জনদুর্ভোগ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা সদর এবং পৌর এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় বৃষ্টির পানি জমে দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। এই জলাবদ্ধতার কারণে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। আর কৃত্রিম জলাবদ্ধতায় নাকাল হয়ে পড়েছেন পৌরবাসী; একই সাথে সীমাহীন এই জনদুর্ভোগ থেকে তারা মুক্তি চায়।

গত সপ্তাহ থেকে চলা টানা বৃষ্টিপাতে পানি জমে তলিয়ে যায় মির্জাপুর শহরের গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি রাস্তা। গত বুধবার রাত থেকে একটানা মুষুলধারায় বৃষ্টি হওয়ায় পৌর সদরের কলেজ রোড, কালীবাড়ি রোড, বংশাই রোড, থানা রোড, কুমারজানী রোড ও কাঁচাবাজার এলাকাসহ সব জায়গায় এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। ছবিতে দৃশ্যমান মির্জাপুর শহরের সবচেয়ে ব্যস্ততম এই সড়কের বেহাল দশার জন্য ভোগান্তি পোহাতে হয় হাসপাতালে আগত রোগী এবং আত্মীয়-স্বজনদের।

এই দুরাবস্থার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে নিম্নমানের ড্রেনেজ সিস্টেম এবং অপরিকল্পিত পয়নিষ্কাষণ ব্যবস্থাপনা। উন্নত ধরনের ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় মুষুলধারায় টানা বর্ষণে পানি জমে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। যার ফলে যোগাযোগের ক্ষেত্রে জনসাধারণের চরম দুর্ভোগের শিকার হয়ে ভোগান্তি পোহাতে হয়। পৌরসভার পক্ষ থেকে পানি নিষ্কাশনের জন্য বিভিন্ন রোডে ড্রেন নির্মাণ করা হলেও নির্মাণ কাজে ত্রুটি থাকায় পানি চলাচলে ব্যাঘাত ঘটে এবং পানি আটকে থাকে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র- শহীদুর রহমান বলেন; পয়নিষ্কাশন ব্যবস্থার জন্য শহরের বিভিন্ন এলাকায় নানা প্রকল্পের আওতায় ড্রেন নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু ড্রেনের ভেতরে ময়লা-আবর্জনা আটকে থেকে পানি নিষ্কাশনে সমস্যা হচ্ছে। এই ময়লা নিষ্কাশনের জন্যেও বিভিন্ন রোডে পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা প্রতিদিন কাজ করছে।

আর কুমুদিনী হাসপাতালের রোডের জলাবদ্ধতার বিষয়ে তিনি বলেন, ওই এলাকায় বেশ কয়েকটি প্রাইভেট ক্লিনিক ও হাসপাতাল এবং ফার্মেসীর দোকান গড়ে উঠেছে। যার কারণে রাস্তায় ময়লা জমে পানি আটকে থাকে। তবে এই সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।।






মন্তব্য চালু নেই