মেইন ম্যেনু

মিশরের বাইরেও যত পিরামিড

পিরামিড মানেই প্রাচীন সভ্যতার দেশ মিশরের পিরামিড। যিশু খ্রিস্টের জন্মের প্রায় ৫ হাজার বছর আগে এসব পিরামিড নির্মাণ করেছিল প্রাচীন মিশরিয়রা। পিরামিড পৃথিবীর প্রাচীন সপ্তম আশ্চর্যের একটি। ২০০৮ সাল পর্যন্ত মিশরে ১৩৮টি পিরামিড আবিষ্কৃত হয়েছে।

তবে এই ১৩৮টি ছাড়াও মিশরের বাইরেও রয়েছে আরো অনেক পিরামিড। এসব পিরামিডের অধিকাংশই এখনো চোখে পড়েনি পর্যটকদের। এই পিরামিডগুলো রয়েছে আফ্রিকার সাহার মরুভূমি এবং পূর্ব মধ্য আফ্রিকার দেশ সুদান জুড়ে। মিশরের পার্শ্ববর্তী দেশ সুদানে রয়েছে ২৫০টিরও বেশি পিরামিড।

সাহারা মরুভূমির পিরামিড: মিশরের বাইরে পৃথিবীর বৃহত্তম মরুভূমি সাহারাতে রয়েছে অনেকগুলো পিরামিড। এর সংখ্যা ১০০’র বেশি হবে। এই পিরামিডগুলো এখানো রয়ে গেছে পর্যটকদের দৃষ্টিসীমার বাইরে।

সাহারা মরুভূমির পিরামিড

সাহারা মরুভূমির পিরামিড

সুদানের হারানো পিরামিড: কয়েকদিন আগেও কেউ জানতো না যে আফ্রিকার দেশ সুদানেও রয়েছে অনেকগুলো পিরামিড।  সুদানের রাজধানী খার্তুম থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরত্বে এক প্রাচীন নগরীর বুকেই আছে এই পিরামিডগুলো। স্থানীয়দের ভাষায় এদের বলা হয় ‘নুবিয়ান পিরামিড’।

নুবিয়ান পিরামিড

নুবিয়ান পিরামিড

২০১৩ সালে সুদানে দুই হাজার বছরের প্রাচীন পিরামিডের সন্ধান পাওয়া যায়। প্রত্নতত্ত্বের খোঁজে টানা তিন বছর ধরে খননকাজ চালানোর পর এসব পিরামিডের সন্ধান পাওয়া গেছে সেখানে। প্রায় ৪০ হেক্টর এলাকার সমাধিক্ষেত্রে এসব পিরামিড অবস্থিত। এখানে এক সহস্রাধিক সমাধি রয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

আরো একটি নুবিয়ান পিরামিড

আরো একটি নুবিয়ান পিরামিড

নুবিয়ান পিরামিডগুলো মিসরের পিরামিডের তুলনায় অনেক ছোটো হলেও এরমধ্যে একটি পিরামিড আবার বেশ বিখ্যাত। পূর্ব তীরের নাইল নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে একটি পিরামিড রয়েছে যাকে ‘বারগাওয়াইয়া’ নামে ডাকা হয়।

সুদানের এই পিরামিডটিকে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী স্থাপনার অন্তর্ভুক্ত করে ইউনেসকো

সুদানের এই পিরামিডটিকে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী স্থাপনার অন্তর্ভুক্ত করে ইউনেসকো

সুদানের আরো কিছু পিরামিড:

সুদানের আরো কিছু পিরামিড সুদানের আরো কিছু পিরামিড২

২০০৩ সালে সুদনে পাওয়া ফারাওদের মূর্তির একটি:

ফারাওদের এরকম ৪০টিরও বেশি মূর্তি পাওয়া গেছে সুদানে

ফারাওদের এরকম ৪০টিরও বেশি মূর্তি পাওয়া গেছে সুদানে






মন্তব্য চালু নেই