মেইন ম্যেনু

মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কের অবকাশ নেই

মুক্তিযুদ্ধের সময় শাহাদাৎবরণকারী ত্রিশ লক্ষ শহীদের সংখ্যা নিয়ে কোনো বিতর্ক করা যাবে না, বিরূপ মন্তব্য করা যাবে না বলে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল রাজাকার ননী-তাহেরের রায়ের পর্যবেক্ষণে বলেছেন।

মঙ্গলবার রায় ঘোষণার পর আদালত থেকে বেরিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জেয়াদ আল মালুম সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘ট্রাইব্যুনাল আজ রায় প্রদানকালে বলেছেন- মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ শহীদের সংখ্যা নিয়ে বির্তকের কোনো অবকাশ নেই। এ রায়ের মধ্য দিয়ে শহীদ পরিবারের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটেছে। এ রায় শহীদ পরিবারের জন্য স্বস্তি ও সান্ত্বনা। দীর্ঘ সময় পর হলেও ন্যায়বিচার পেয়েছে শহীদ পরিবার।’

মামলার প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল সাংবাদিকদের বলেন, ‘আসামিদের বিরুদ্ধে আনীত ছয়টি অভিযোগের মধ্যে চারটি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণে প্রসিকিউশন সক্ষম হয়েছে। এর মধ্যে ১ ও ২ নম্বর অভিযোগে আসামিদের আমৃত্যু কারাদণ্ড এবং ৩ ও ৫ নম্বর অভিযোগে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার রায় দেয়া হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় এ আসামিরা যে নৃশংস অপরাধ করেছেন তাতে তাদের মৃত্যুদণ্ডের সাজাই প্রাপ্য বলে রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়েছে।’

প্রসিকিউটর বাদল আরো বলেন, ‘এ আসামিদের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, অপহরণ, দেশান্তরিতকরণ, বাড়িঘরে আগুন ও লুটপাটের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সর্বোচ্চ এ সাজা দেয়া হয়েছে।’

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের বিচারিক প্যানেল জনাকীর্ণ ট্রাইব্যুনালে আজ এ রায় ঘোষণা করেন।






মন্তব্য চালু নেই