মেইন ম্যেনু

মুখে ঘা? জেনে নিন কি করবেন?

মুখের ভেতর, মাড়ি বা জিবে অনেক সময় ঘা লক্ষ্য করা যায়। এটি যেমন কষ্টদায়ক তেমনি মুখের ভেতর এক ধরনের অস্বস্তি অনুভব হয়। বিভিন্ন কারণে মুখে ঘা হয়ে থাকে, তার মধ্যে যে সব কারণ অন্যতম তা হলোÑ ডায়াবেটিক রোগী, গর্ভকালীন সময়, বিভিন্ন ধরনের ছত্রাক সংক্রমণ, ভিটামিন ‘এ’র অভাব, মানসিক চাপ, দাঁত ও মাড়ির রোগ, উপরের দিকের মাড়ির দাঁত ও নিচের দিকের মাড়ির দাঁতের কারণে অনেক সময় গালে কামড় লাগে, এর কারণেও মুখে ঘা হয় বলে ধারণা করা হয়, জোরে দাঁত ব্রাশের সময় মাড়িতে আঘাত লাগে, সেখানেও এক ধরণের ঘা হতে পারে।

সাধারণত সব বয়সী নারী-পুরুষের মুখে অ্যাপথাস আলসার নামের এক ধরনের ঘা বেশি দেখা যায়। এর কারণ হিসেবে মনে করা হয় ভিটামিন ‘বি’র স্বল্পতা, অনিদ্রা, মুখ গহ্বর অপরিচ্ছন্নতা, মানসিক চাপ, ধারাল বা অস্বাভাবিকভাবে দাঁত ক্ষয় হয়, এর ফলে দাঁতের ধারাল অংশ ক্রমাগতভাবে জিহ্বা বা মুখের ভেতর আঘাত করে। বেশির ভাগ আলসার বা ঘা এ কারণে হয়ে থাকে। এ ছাড়া অ্যাস্টরয়েড জাতীয় ওষুধ সেবন, কেমোথেরাপি, অনেক দিন যাবৎ রোগভোগ, ক্যানসার এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকার কারণেও মুখে ঘা হয়।

ক্যানডিডা নামক এক ধরনের ছত্রাক সংক্রমণের ফলে মুখে ঘা হয়ে থাকে। তাছাড়া যে সব হাঁপানি রোগী অনেক সময় ইনহেলার গ্রহণ করে, তাদের সাবধানতার সঙ্গে সেটি গ্রহণ করা উচিত। এটি গ্রহণের পর মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার না করলে ছত্রাকের সংক্রমণ হতে পারে। মুখে ঘা হওয়ার কারণে সামান্য ব্যথা, ক্ষত জায়গায় জ্বালা হতে পারে।

প্রতিকার : যেহেতু আঘাতজনিত কারণে এটি বেশি দেখা যায় তাই দাঁত ব্রাশের সময় সাবধানতা অবলম্বন করা দরকার। এ সমস্যা রোধের জন্য পরিমিত খাবার, ঘুম, মানসিকভাবে চাঙ্গা থাকা দরকার। তবে আশার কথা, এটি এমনিতেই ভালো হয়ে যায় । মাড়ির দাঁতের কারণে বা ধারাল দাঁতের কারণে এমনটি হলে বা খুব বেশি অসুবিধা মনে হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন।






মন্তব্য চালু নেই