মেইন ম্যেনু

মুসলমানদের ওপর আক্রমণ বেড়েছে যুক্তরাষ্ট্রে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকায় হামলা, আটকসহ বিভিন্ন ধরনের হয়রানির শিকার হচ্ছেন মুসলমানরা। সন্দেহ হলেই আটক, হামলা সন্দেহভাজন বলে আটক করা হয়েছে একাধিক মুসলমান নাগরিককে। এসব ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিজেদের নাগরিকদের সতর্ক করে দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

সংবাদমাধ্যম সিবিএস এ তথ্য দিয়েছে। মুসলমানদের ওপর হামলার একাধিক ঘটনা তুলে ধরে প্রতিবেদনটি সম্প্রতি নিজেদের অনলাইন সংস্করণে প্রকাশ করেছে সিবিএস।

সম্প্রতি ওহিও রাজ্যের অ্যাভনে ‘সন্দেহ’ হওয়ায় ৪১ বছর বয়স্ক আহমেদ আল মেনহালিকে একটি হোটেল থেকে আটক করা হয়। ‘ফেয়ারফিল্ড ইন’ নামে ওই হোটেলের এক কর্মী পুলিশকে ফোন দিয়ে আহমেদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। ওই কর্মীর ধারণা, আহমেদ আইএসের কর্মী হতে পারেন। এ সময় আহমেদের গায়ে ছিল আরবের প্রচলিত পোশাক।

পুলিশ আহমেদ আল মেনহালিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। কিন্তু সন্দেহ হওয়ার মতো কিছুই পায়নি। পরে অবশ্য আহমেদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করে পুলিশ।

আহমেদ আল মেনহালি আমিরাতের নাগরিক। আমিরাতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতও এ ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করেন।

মিনেপোলিসে মসজিদে যাওয়ার সময় দুই মুসলমান নাগরিককে গুলি করে হত্যা করা হয়।

এক ভিডিওতে দেখা যায়, নিউইয়র্কের ব্রুকলিনে দুই মুসলমান তরুণের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু নিউইয়র্ক পুলিশের দাবি, ওই দুই তরুণ একজন নারীকে নিয়ে মারামারি করছিলেন।

বেসরকারি সংস্থা কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশনস ক্লিভারল্যান্ড শাখার নির্বাহী পরিচালক জুলিয়া শেরসন বলেন, ‘মুসলমান সম্প্রদায় ও সম্পত্তির বিরুদ্ধে হামলার ঘটনা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই