মেইন ম্যেনু

মুস্তাফিজকে ছাড়িয়ে আবু হায়দার রনি

জাতীয় ক্রিকেট লিগে সেভাবে জ্বলে উঠতে না পারলেও বিপিএলে দারুণ চমক দেখাচ্ছেন তরুণ ফাস্ট বোলার আবু হায়দার রনি। বিপিএলের দ্বিতীয় পর্ব শেষে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেওয়া বোলারের তালিকায় যৌথভাবে এক নম্বরে আছেন তিনি।সাকিব আল হাসানের উইকেট ১৩।৭ ম্যাচে রনির উইকেটও ১৩।

গত ৬ মাসে বাংলাদেশ ক্রিকেটার চেহারা পাল্টে দেওয়া তুখোড় ফাস্ট বোলার মুস্তাফিজুর রহমানকে এ যাত্রায় ছাড়িয়ে গেছেন রনি। পরিসংখ্যানই সেটা বলে দেয়। ৬ ম্যাচে ৯ উইকেট নিয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট পাওয়া বোলারদের তালিকায় ৮ নম্বরে মুস্তাফিজ।

উইকেট পাওয়ার দৌঁড়ে শুধু নয়, বোলিংয়ের আরো অনেক দিকেই কাটার বয় মুস্তাফিজকে ছাড়িয়ে গেছেন রনি। মুস্তাফিজ ওভার প্রতি রান দিয়েছেন ৭.০৫। আর রনি ওভার প্রতি রান দেন ৬.৮৩। মুস্তাফিজের স্ট্রাইক রেট ১৫.৭ এবং গড় ১৮.৫৫। এখানেও সাতক্ষীরা এক্সপ্রেসের চেয়ে এগিয়ে রনি। তার বোলিং গড় ১৪.৫৩ এবং স্ট্রাইক রেট ১২.৭।

৭ ম্যাচের মধ্যে আবু হায়দার রনির সেরা বোলিং ২৮ রান দিয়ে ৪ উইকেট, সিলেট সুপার স্টার্সের বিপক্ষে। অন্য দিকে এখনও এক ম্যাচে চার উইকেট পাননি মুস্তাফিজুর রহমান। তার সেরা বোলিং ১৪ রান দিয়ে ৩ উইকেট, চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে।

বেশ ক’য়েকটা দিক দিয়ে অবশ্য দুজনের ভালো মিল আছে এবং সেটা হলো- মাত্র এক ম্যাচেই উইকেট শূণ্য থেকেছেন তারা। মিল আছে আরো একটা দিকে। দুজনের বয়সই ১৯ এবং বাঁ হাতি। আর উভয়ের রান আপই দীর্ঘ। দেখার মতো।

বিপিএলে আলো ছড়িয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষন করে নিয়েছেন আবু হায়দার রনি। অনেকেই তার জাতীয় দলে অভিষেকর সম্ভাবনা দেখছেন। ওয়ানডে অধিনা্য়ক মাশরাফি বিন মোর্তুজা তেমন ইঙ্গিতই দিয়ে রেখেছেন।অন্যতম নির্বাচক হাবিবুল বাসার সুমনও বলেছেন তেমনটা। জাতীয় দলে দুই প্রান্তে দুই তরুণ তুর্কির গতির ঝড় দেখার অপেক্ষায় টাইগার সমর্থকরা। মুস্তাফিজের সঙ্গে আবু হায়দার রনি। বাহ। কম্বিনেশনটা জমবে বেশ।






মন্তব্য চালু নেই