মেইন ম্যেনু

মুস্তাফিজকে ধোনির ধাক্কা আর বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ

৮ মাস ৬ দিন আগে ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির সেই দৌড়ে হাফপিচে দাঁড়ানো মুস্তাফিজুর রহমান খেয়েছিলেন ধাক্কা। ফলো থ্রুতে এভাবে পিচের উপর দাঁড়িয়ে থাকা যায় না। কুড়ি বছরের ছেলেটিকে কি সে শিক্ষাই দিতে চেয়েছিলেন ধোনি? না ধাক্কাটি তার ইচ্ছাকৃত। আজও বাংলাদেশের সমর্থকদের কাছে ওই ঘটনা রহস্যের। তবে ওই ধাক্কায় চোট পেয়ে প্রতিবাদ করেননি মুস্তাফিজুর।

বরং ধাক্কাটির জবাবে বল হাতে ছিপছিপে ছেলেটিকে আরও বেশি ভয়ঙ্কর হতে দেখা গিয়েছিল। প্রথম স্পেলে রোহিত, রাহানেকে তুলে নিয়ে ধোনির ধাক্কার জবাব দিয়েছিলেন তিনি। ভারতের ব্যাটিং গর্বকে মাটিতে নামিয়ে এনেছিলেন পরের স্পেলে আরও তিনজনকে তুলে নিয়ে। সেটা ছিল ওয়ানডে। নিজেকে চিনিয়েছিলেন শুরুতেই। অভিষেকে ভারতের বিপক্ষে ৫ উইকেট, পরের ম্যাচে ৬ উইকেট, আর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১৩ উইকেটে বিশ্বরেকর্ড তাঁরই দখলে! বাঁ হাতি ফাস্ট বোলার মুস্তাফিজুরকে সেই থেকে ‘কাটার মাস্টার’ বলা হয়।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের কাছে ২-১ এ সেই হারের ক্ষতটা এখনও তাজা ভারতের। পুরো সিরিজে দু’দলের ব্যবধান গড়ে দিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর। ৮ মাস পর তা মুখ ফুটে স্বীকার করে নিয়েছেন বিরাট কোহলি। বলেন, ‘‘মুস্তাফিজ গত এক বছরে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলছে। এতো অল্প বয়সে একজন বোলারকে এভাবে বোলিং করতে দেখাটা সত্যিই অবিশ্বাস্য। আমার বিশ্বাস এই টুর্নামেন্টেও বাংলাদেশের জন্য মুস্তাফিজুর হতে যাচ্ছে বড় ফ্যাক্টর।’’

মুস্তাফিজুর সম্পর্কে বলতে গিয়ে বিরাট আরও বলেন, ‘‘বাংলাদেশের মতো কন্ডিশনে একজন পেস বোলার যদি চার-পাঁচটি উইকেট নিয়ে ব্যাটসম্যানদের বিপাকে ফেলতে পারে, তখনই খেলাটা অনেক বেশি কঠিন হয়ে যায়। এমন বোলারের বিপক্ষে খেলাটা ব্যাটসম্যানদের কাছে চ্যালেঞ্জ। তাই তাঁকে সামলাতে পরিকল্পনা তো থাকবেই।’’ চোট সারিয়ে ফিরে মুস্তাফিজ পাচ্ছেন সেই ভারতকেই। প্রত্যাশার চাপটা তাই মুস্তাফিজুরের উপরে একটু বেশি। অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘‘ওকে নিয়ে অনেক কথাই হচ্ছে। আমি নিশ্চিত সেগুলো নিয়ে ও মাথা ঘামাচ্ছে না।

ওর পুরো মনোসংযোগ থাকবে খেলায়।’’ ভারতের বিপক্ষে ৩২টি ওয়ানডে ম্যাচের ৫টিতে জয় বাংলাদেশের, যার তিনটিই শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। এই ভেন্যুতে ভারতের বিপক্ষে সর্বশেষ ৪টি ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছে বাংলাদেশ দল। তবে টি২০তে ভারত অনেক এগিয়ে। ভারত যেখানে সংক্ষিপ্ত ভার্সনের ক্রিকেটে আইসিসি’র র‌্যাঙ্কিংয়ে নাম্বার ওয়ান সেখানে বাংলাদেশ ৯ নম্বরে।

এর মধ্যেই মুস্তাফিজুরের বোলিংয়ের জন্য ফিল্ড প্লেসিং অভিনব করার পরিকল্পনা বাংলাদেশ অধিনায়কের। মাশরাফি চাইছেন যাতে ফিল্ডিংয়ে সাহায্য পান মুস্তাফিজ। বলেন, ‘‘মুস্তফিজের ফিল্ড প্লেসমেন্ট নিয়ে অনেক আগের থেকেই ডিল করছি। টি২০ ক্রিকেটে ভারতের ব্যাটিং লাইন আপ খুব ভাল। তাই মুস্তাফিজুরের পাশাপাশি সকলকেই সেরাটা দিতে হবে।আমাদের লক্ষ্য হবে ভুলগুলো কম করা। তাহলেই আমরা ভাল করতে পারব।’’

মুস্তাফিজুরকে সামনে রেখেই ভারত বধের ব্লু প্রিন্ট তৈরি করছে বাংলাদেশ।

-আনন্দবাজার






মন্তব্য চালু নেই