মেইন ম্যেনু

মুস্তাফিজকে সিলেটি কন্যার বিয়ের প্রস্তাবে হ্যাপি যা বললেন

মুস্তাফিজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ থেকে একবারে সেলিব্রেটিরাও। বর্তমানে মুস্তাফিজের জন্য অনেক তরুণীর রাতের ঘুম হারামও হয়েছে। সম্প্রতি সিলেট শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী উম্মে কুলসুম ফেসবুকে মুস্তফিজকে দিয়ে বসলেন বিয়ের প্রস্তাব। সিলেটি এই তরুণীর বিয়ের প্রস্তাবে আলোচিত চিত্রনায়িকা নাজনিন আক্তার হ্যাপি বিষ্ময় প্রকাশ করে তার ফেসবুকে লিখেছেন “ওরে মুর খোদা কেমনে কি?”

অবশ্য হ্যাপি তার নিজের ফেসবুক একাউন্টে (fb.com/najninakterh) এ ব্যাপারে কিছু লেখেননি। হ্যাপির নামে খোলা (fb.com/najninakterrubel) একটি ফেসবুক পেজে এটা লেখা হয়েছে। এই পেজটি হ্যাপি চালান কিনা সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এর আগে বাংলাদেশ-ভারত সিরিজ চলাকালে মুস্তাফিজে মুগ্ধ হয়ে ফেসবুক ওয়ালে হ্যাপীও দিয়েছিলেন কয়েকটি স্ট্যাটাস। পাঠকদের জন্য হ্যাপীর সেই সময়ের একটি স্ট্যাটাস তুলে ধরা হলো :
“স্টেডিয়াম থেকে খেলা দেখে একটু আগে বাসায় ফিরলাম। আজ সম্পূর্ণ খেলাটাই দেখলাম। ভাল লাগল। আর মোস্তাফিজুরের খেলা দেখে তো পুরাই ফিদা হয়ে গেলাম। পোলাটার আসলে মেধা আছে। খেলার এই ধারাবাহিকতা থাকলে, সে সব রেকর্ড ভেঙে দেবে। দোয়া, দোয়া ,দোয়া মোস্তাফিজুর রহমান এর জন্য।”

উল্লেখ্য যে, হ্যাপি ভারত-বাংলাদেশ সিরিজ ম্যাচের সবগুলোতে মাঠে উপস্থিত থেকে দর্শকদের সাথেই খেলা উপভোগ করেন।

সাতক্ষীরার হ্যাংলা পাতলা মুস্তাফিজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মাঠ কাঁপাচ্ছেন বল হাতে। ক্রিকেট বিশ্ব তাকে নিয়ে রীতিমত অনুসন্ধান শুরু করেছে। কিন্তু গ্যালারি থেকে শুরু করে টেলিভিশন দর্শকদের মধ্যে যে সব তরুণী কয়েক দিন আগেও সাকিব-তাসকিন বলে গলা শুকিয়ে ফেলতেন তাদের মনে এখন অন্য রং। নতুন এ রংয়ের নাম মুস্তাফিজ। এখন মুস্তাফিজ স্বপ্নে বিভোর কিশোরী থেকে শুরু করে তরুণীরা। দেশের বাইরেও নজর পড়তে শুরু করেছে মুস্তাফিজের। সবে তো উনিশ। চায়ের আড্ডা থেকে, ফোনালাপ, ফেসবুকে মুস্তাফিজের প্রসংশার তুবড়ি ছুটছে যেন মেয়ে মহলে।

সাদামাটা চেহারার এই উনিশ বছরের তরুণ মাঠে ভারতীয় অভিজ্ঞ ব্যাটস্ম্যানদের রীতিমতো নাস্তানাবুদ করে পরাস্ত করে ছেড়েছে। আর তার এই সহজ-সরল লাজুক স্বভাবই মেয়ে মহলে তাকে তুলেছে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে।

জীবনের প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৫ উইকেট, দ্বিতীয়টিতে ৬ উইকেট। ক্রিকেট বিশ্বে এমন রেকর্ডের অধিকারী এখন একমাত্র আমাদের বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমান।

গতকাল থেকেই এ সংবাদটি প্রচার করছে কয়েকটি অনলাইন পত্রিকা। কিন্তু কেউ মেয়েটির ফেসবুক একাউন্টের লিংক বা স্ক্রীনশট দিতে পারেনি। সুতরাং সংবাদটির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যায়। তবে উল্লেখ্য যে বাংলাদেশের মেয়েদের ক্রিকেটারদের বিয়ের প্রস্তাব দেয়ার এমন নজির অনেক আছে। পাকিস্তানের শহীদ আফ্রিদি ঢাকায় খেলতে এলে ঢাকার তরুনীরা “আফ্রিদি, প্লিজ ম্যারি মি” প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেছিলেন স্টেডিয়ামে।

সম্প্রতি ক্রিকেট বিশ্বকাপ চলাকালীন অস্ট্রেলিয়ার মাঠে এক তরুনী রুবেলকে উদ্দেশ্য করে ‘ম্যারি মি’ লেখা দেখিয়েছিলেন। বাংলাদেশ দল অস্ট্রেলিয়া থেকে ফেরার দিন বিমানবন্দর সহ রাস্তায় একাধিক তরুণী রুবেল, তাসকিনকে একই লেখা দেখিয়ে বিয়ের আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন।

happy-mustafiz

আরো বিস্তারিত পড়তে নিচের লিংকে ক্লিক করুন:

মুস্তাফিজকে বিয়ের প্রস্তাব দিল সিলেটি কন্যা !






মন্তব্য চালু নেই