মেইন ম্যেনু

মুস্তাফিজের ইনজুরি নিয়ে চিন্তিত বিসিবি

ইনজুরির কারণে এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলা হয়নি তার। এর আগে চোটের কারণে পাকিস্তান সুপার লিগে খেলা হয়নি মুস্তাফিজের। সেই ইনজুরি ভর করেছিলে বিশ্বকাপেও। বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডের কোন ম্যাচই খেলতে পারেননি তিনি। সুপার টেন পর্বের প্রথম ম্যাচও খেলতে পারেননি এই বাঁ হাতি পেসার। কিন্তু পরের তিন ম্যাচ খেলেই যেন নিজেকে স্বরূপে ফিরে পেয়েছিলেন মুস্তাফিজ। তিন ম্যাচ খেলেই নিয়েছেন ৯ উইকেট।

বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরে কয়েকদিনের বিশ্রাম। কিন্তু আবার ক্রিকেটে ফিরতে হচ্ছে তাকে। আইপিএলের মত বড় আসরে প্রথমবারের মত খেলতে যাচ্ছেন মুস্তাফিজ। সানরাইজার্স হায়দারাবাদের হয়ে আইপিএল মাতাবেন সাতক্ষীরার সন্তান। কিন্তু মুস্তাফিজের ইনজুরি নিয়ে বেশ চিন্তিত রয়েছে বিসিবি। আইপিএলে অনেকগুলো ম্যাচ খেলতে হবে মুস্তাফিজকে পাশাপাশি অনেক পরিশ্রমও করতে হবে ভালো করতে হলে। এজন্য মুস্তাফিজকে সতর্কতার সঙ্গে সামলাতে তার দলের কাছে বিস্তারিত জানিয়েছেন বাংলাদেশের ফিজিও বায়েজিদুল ইসলাম খান।

মুস্তাফিজকে কিভাবে অনুশীলন করাতে হবে, কতটুকু পরিশ্রম করতে হবে তাকে, কিভাবে তাকে নেটে ব্যবহার করতে হবে সব বিষয়েই দিক নির্দেশনা দিয়েছেন এই ফিজিও। হালকা-পাতলা গড়নের মুস্তাফিজের থ্রোয়িংয়ে কিছুটা সমস্যা রয়েছে বলে জানান ফিজিও। তার মতে, ‘আপাতত মুস্তাফিজকে নিয়ে কোনো সমস্যা নেই, অন্তত বোলিং নিয়ে। থ্রোয়িং নিয়ে কিছু সমস্যা আছে। সীমানা থেকে এখনও পুরোপুরি থ্রো করতে পারছে না, হয়ত ৫০ গজ বা এমন জায়গা থেকে করতে পারছে। ম্যাচে তো এমনিতেও থ্রো খুব বেশি করতে হয় না সীমানা থেকে। তারপরও আস্তে আস্তে কিভাবে থ্রোয়িং আর্মে প্রেশার দিয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় আনতে হবে, সেটা জানিয়ে দিয়েছি।’

দেশ ছাড়ার আগে মুস্তাফিজকেও কিভাবে ট্রেনিং করতে হবে সে বিষয়ে টিপস দিয়েছেন এই ফিজিও। ‘নানা পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে ওকেই। যাওয়ার আগে বিস্তারিত সব কিছু বুঝিয়ে দিয়েছি ওকে। ফিটনেস ড্রিল থেকে শুরু করে সব কিছু লিখিত আকারে দিয়ে দেয়া হয়েছে সঙ্গে। আশা করি সে অনুসরণ করবে।’

সানরাইজার্স হায়দারাবাদের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করছেন অভিজ্ঞ অস্ট্রেলিয়ান টম মুডি। এছাড়া রয়েছেন বিশ্বমানের ফিজিওরাও। আশা করা যাচ্ছে মুস্তাফিজ সেখানে ভালোভাবেই মানিয়ে নিতে পারবে। কিন্তু মুস্তাফিজকে নিয়ে একটু বেশিই বেগ পেতে হবে হায়দারাবাদকে। ‘একেকজন ক্রিকেটারকে সামলাতে হয় একেকভাবে। মুস্তাফিজের ক্ষেত্রে হয়ত আমরা দু’দিন বোলিং করিয়ে একদিন বিশ্রাম দেই। কখনও অবস্থা বুঝে একদিন বোলিং, একদিন বিশ্রাম। এই ব্যাপারগুলো জানিয়েছি। নেটে বা অনুশীলনে কতটুকু লোড দেওয়া উচিত, ওর শরীরের ধরন কেমন, এসব বিস্তারিত জানিয়ে দিয়েছি।’

শনিবার আইপিএল গড়ালেও মুস্তাফিজের দল সানরাইজার্স হায়দারাবাদের প্রথম ম্যাচ ১২ এপ্রিল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে।






মন্তব্য চালু নেই