মেইন ম্যেনু

মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছেন বলিউডের যে সমস্ত সেলেব্রিটিরা

বাইরে থেকে দেখলে তাঁদের জীবনটা খুব সুন্দর লাগবে। সুন্দর হবে নাই বা কেন? তাঁরা যে পরিমাণ পরিশ্রম করেন তার ফলও তো সুন্দরই হবে। বহু সমস্যার সম্মুখীন হলেও এই সেলিব্রিটিদের হাসি মুখেই ফ্যনেদের সামনে আসতে হয়। দেখে নেওয়া যাক বলিউডের ১০ জন সেলেবদের, যাঁরা গুরুতর অসুখের সঙ্গে লড়ে নিজের কাজ নিয়ে এগিয়ে গিয়েছেন।

১) শাহরুখ খানঃ বহুবার শ্যুটিং করতে গিয়ে আহত হয়েছে। কাঁধে ও হাঁটুতে গুরুতর চোট পেয়েছিলেন তিনি। বহুবার অস্ত্রপোচারও করতে হয়েছে বাদশাকে।

২) সলমন খানঃ ২০১১তে ট্রিগমেনিয়া নিউরআলজিয়া অর্থাৎ মুখমন্ডলে স্নায়ুরোগ ধরা পড়ে এনার। এখনও এই রোগের চিকিৎসা চলছে সলমনের।

৩) অমিতাভ বচ্চনঃ কুলি ছবির শ্যুটিং চলাকালীন অবস্থা গুরুতর চোট পান বিগ বি। প্রচুর পরিমাণে রক্ত ক্ষরণ হয়। এর পরও বহুবার অসুস্থ হয়েছেন তিনি। বহুবার অস্ত্রপ্রচারও করতে হয়েছে।

৪) সইফ আলি খানঃ ২০০৭ সালে স্টারডাস্ট অ্যাওয়ার্ড সোতে পারফর্ম করার সময় হঠাৎই বুকে ব্যাথা শুরু হয় তাঁর। সঙ্গে সঙ্গে সইফ আলিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা জানান মাইল্ড হার্ট অ্যাটাকের শিকার তিনি। বর্তমানে তিনি মায়োকার্ডিয়াল (হৃদ্‌যন্ত্রে যথেষ্ট পরিমাণে রক্ত পৌঁছায় না) রোগে আক্রান্ত।

৫) রজনীকান্তঃ ২০১১ সালে জ্বর ও ফুসফুসের সমস্যা গুরুতর রূপ নেয়। তাখনই টলিউডের রাজা রজনীকান্তকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

৬) মনীষা কৈরালাঃ ২০১০ সালে জরায়ুর ক্যানসারে আক্রান্ত হন ইনি। এরপর আমেরিকায় গিয়ে চিকিৎসা করান এবং চকিৎসা সফল হয়।

৭) লিজা রেয়ঃ ২০০৯ সালে বোন ম্যারোর ক্যানসারে আক্রান্ত হন লিজা। অস্ত্রোপ্রচারের পর লিজা জানান তিনি ক্যানসার মুক্ত তবে পুরোপুরি সুস্থ নন।

৮) হৃত্বিক রোশনঃ ব্যাং ব্যাং ছবির শ্যুটিং চলাকালীন মস্তিষ্কের রোগে আক্রান্ত হন হৃত্বিক রোশন। সেই জন্য গুরুতর অস্ত্রপ্রচারও হয় তাঁর।

৯) অনুরাগ বসুঃ ২০০৪ এ ব্লাড ক্যানসার ধরা পড়ে এনার। চিকিৎসক ২ মাস সময় দেন এনাকে। তবুও মনের জোরে র কেমথেরাপির পর এখন সুস্থ অনুরাগ।

১০) মুমতাজঃ ২০০২ সালে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হনমুমতাজ। তবুও ভেঙে পড়েননি ইনি।-কলকাতা২৪






মন্তব্য চালু নেই