মেইন ম্যেনু

মৃত্যুর ৫ মিনিট আগে সেলফি: ঝরে পড়ল তাজা প্রাণ

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় ১৬ অক্টোবর শুক্রবার বিকেল আনুমানিক ৪টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের লোহারদিঘীর পাড় এলাকায় ড্রাপার পিকআপের সাথে মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত এবং ১ জন গুরতর আহত হয় মর্মান্তিক এ সড়ক দূর্ঘটনার খবর চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

ঝরে গেল কয়েকটি তাজা প্রান: ড্রাপার পিকআপের সাথে মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘষে নিহতরা হল লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদের সুখছড়ি হাছির পাড়ার আবদুল মালেকের পুত্র মুহাম্মদ তানজিব (১৬), একই এলাকার হাঁছি মিয়ার পুত্র মুহাম্মদ শাকিল (১৭) একই এলাকার মুহাম্মদ আলী সওদাগরের পুত্র মুহাম্মদ শোয়াইব (১৬) এছাড়াও গুরতর আহত আমিরাবাদ রাজঘাটার আমির খান চৌধুরী পাড়ার নুরুল ইসলামের পুত্র আকতার হোসেন (১৮) কে আশংকাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

দুর্ঘটনাস্থল লোহারদিঘীর পাড়ের আশেপাশের লোকজন জানায় বেপরোয়া গতিতে আসা ইটবোঝাই ড্রাপার পিকআপটির সাথে মোটরসাইকেল এর সংঘর্ষ হতে দেখে ছুটে আসেন তারা কিন্তু ড্রাপার পিকআপটির গায়ে কোন নাম্বার প্লেট লাগানো না থাকায় তারা ঘাতক গাড়িটিকে চিহ্নিত করতে পারেননি।

উল্লেখ্য সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় প্রশাসনের নাকের ডগায় নিদ্ধিষ্ট পরিমান মাসোহারা দিয়ে বেপরোয়া ভাবে চলছে শত শত অবৈধ রেজিষ্টেশন বিহীন নাম্বার বিহীন ড্রাপার পিকআপ প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা কিন্তু নাম্বার প্লেট না থাকার কারনে দুঘটনা ঘটার পরে এসব গাড়ির নাম্বার জানা সম্ভব হয়না অভিযোগ আছে মালিক সমিতির পক্ষথেকে প্রতিটি নাম্বার বিহীন ড্রাপার পিকআপ থেকে নিদ্ধিষ্ট পরিমান টাকা পৌছে দেওয়া হয় সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে যার ফলে চলাচলে বাধা পেতে হয়না এবং যারা চালাচ্ছে তাদের অধিকাংশের লাইসেন্স নেই ফলে বাড়ছে দুর্ঘটনা কিন্তু দেখার কেউ নেই।






মন্তব্য চালু নেই