মেইন ম্যেনু

মৃত মায়ের মুখ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন বাবর

১২ ঘণ্টার জন্য প্যারোলে মুক্তি পেয়ে রাজধানীর গুলশান-২ নম্বরে নিজের বাসায় যান সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর। বাসভবনের সামনেই ফ্রিজিং গাড়িতে রাখা মা জোবাইদা রহমানের মরদেহ। মৃত মায়ের মুখ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন বাবর। এসময় সেখানে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

এর কিছুক্ষণ পর তিনি বাসভবনের নিচতলায় মাগরিবের নামাজ আদায় করেন। পরে সেখানেই মায়ের দ্বিতীয় জানাজার নামাজে অংশ নেন। বাদ আসর গুলশান আজাদ মসজিদে প্রথম জানাজার নামাজে অংশ নেয়ার কথা থাকলেও মুক্তি পেতে দেরি হওয়ায় তিনি সেখানে উপস্থিত হতে পারেননি। তাই বাসভবনের নিচে দ্বিতীয় জানাজার ব্যবস্থা করা হয়।

এদিকে, দ্বিতীয় জানাজা শেষে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে বাবার কবরের পাশে মাকে চির বিদায় দেন লুৎফুজ্জামান বাবর।

প্রসঙ্গত, লুৎফুজ্জামান বাবরের মা জোবাইদা রহমান মঙ্গলবার ভোরে অ্যাপোলো হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। দীর্ঘদিন ধরে কিডনির জটিলতায় আক্রান্ত জোবাইদা রহমান ঈদের দুইদিন আগে অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সকালে মায়ের মৃত্যুর খবর কাশিমপুর কারাগারে বন্দি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের কাছে পৌঁছানো হয়। এরপর মাকে শেষ দেখা ও তার জানাজায় অংশ নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানালে তাকে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই