মেইন ম্যেনু

মেঘনা থেকে উদ্ধার করা ২যুবক-যুবতীর পরিচয় মিলে নি ॥ সর্বত্র আতংক

ভোলার মনপুরার মেঘনা নদীর পৃথক ২স্থান থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার হওয়া দুটি লাশের পরিচয় এখনো মিলে নি। ৪ দিনের ব্যবধানে পর পর দুটি লাশ উদ্ধার হওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা যায়, গত ২৮ সেপ্টেম্বর সোমবার মনপুরার লতাখালী নামক স্থানের কেওড়া বাগান সংলগ্ন মেঘনা থেকে এক যুবতীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে মনপুরা থানা পুলিশ। অজ্ঞাতনামা এই যুবতীর লাশের সুরতহাল শেষে ভোলা পোষ্ট মর্টেমের জন্য প্রেরণ করা হয়।

অজ্ঞাত এ যুবতীর গায়ের রং ফর্সা।পরনে ছিল লাল সেলোয়ার কামিজ। এ ঘটনার ৪দিন অতিবাহিত হলে ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় হাজীরহাট ইউনিয়নের দাসেরহাট সংলগ্ন মেঘনায় এক যুবকের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে ভোলা মর্গে প্রেরন করে।

অজ্ঞাতনামা এ যুবকের আনুমানিক বয়স ২৪-২৫ বছর।পড়নে লাল প্যান্ট ছাড়া কিছুই ছিল না। এ রিপোর্ট(৩সেপ্টেম্বর) লেখা পর্যন্ত হতভাগ্য ২যুবক-যুবতীর পরিচয় পাওয়া যায় নি। মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) হানিফ সিকদার জানান,মনপুরার মেঘনা থেকে উদ্ধার করা হতভাগ্য ২যুবক-যুবতীর লাশ ভোলায় পোস্ট মর্টেম শেষে সরকারী গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ভোলার পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান জানান,অজ্ঞাত এ দুই যুবক-যুবতীকে হত্যা করে মেঘনা নদীতে লাশ ভাসিয়ে দিচ্ছে বলেই এসব লাশ মেঘনায় পাওয়া যাচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।






মন্তব্য চালু নেই