মেইন ম্যেনু

মেম্বারকে কিল-ঘুষি মারলেন চেয়ারম্যান!

কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারীতে টিআর, কাবিখা, ও ননখাত (অন পার্সেন্ট) কর্মসূচি ভাগবাটোয়ার ও প্রকল্প সভাপতি করাকে কেন্দ্র করে পরেশ চন্দ্র নামে ইউপি সদস্যকে প্রকাশ্যে কিল-ঘুষি মারলেন চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনাটি ঘরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত কার্যালয়ে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন চেয়ারম্যান।

ওই ঘটনার প্রায় ঘণ্টাখানেক পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কার্যালয়ে অভিযুক্ত মেম্বার ও চেয়ারম্যানের মধ্যে ঘটনার মীমাংসা বা সমঝোতা করা হয়। ইউএনও শংকর কুমার বিশ্বাস জানান, মেম্বার আর চেয়ারম্যানকে ডেকে আনে তাদের মধ্যে সৃষ্ট ঘটনার মীমাংসা করে দেয়া হয়েছে।

রৌমারী সদর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার পরেশ চন্দ্র জানান, আমার এলাকায় টিআর, কাবিখা ও এলজিএসপি কর্মসূচির প্রকল্পগুলোতে প্রকল্প সভাপতি করা হয়েছে সংরক্ষিত নারী সদস্যকে। নিয়ম অনুসারে আমার এলাকার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের প্রকল্প সভাপতি হব আমি। কিন্তু চেয়ারম্যান অর্থের বিনিময়ে অন্যায়ভাবে অন্যজনকে প্রকল্প সভাপতি করেন। এর প্রতিবাদ করার কারণে চেয়ারম্যান আমাকে মারপিট করেন।

অপরদিকে, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘ওই মেম্বার আমার সঙ্গে বেয়াদবি করেছে। রাগের মাথায় হঠাৎ করেই তার ওপর হাত তুলেছি। পরে মেম্বারের সঙ্গে তা মিলমিশ হয়ে গেছে। এখন আর তার সঙ্গে কোনো বিরোধ নেই আমার।’






মন্তব্য চালু নেই