মেইন ম্যেনু

মেলা থেকে ডেকে নিয়ে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে মকবুল পাগলার বার্ষিক মেলার পাশে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। চারদিন ধরে ওই শিশু জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ধর্ষক রিকশাচালক আকবর হোসেন (৫০) ও তাঁর বাড়ির লোকজন পলাতক। ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রী আকবরের প্রতিবেশী ভ্যানচালকের মেয়ে।

স্কুলছাত্রীর চাচা জানান, গত সোমবার রাত ৮টার দিকে মায়ের সঙ্গে মেলায় যায় মেয়েটি। এ সময় প্রতিবেশী নানা সম্পর্কে আকবর মুখরোচক খাবার কিনে দেওয়ার কথা বলে মেয়েটিকে মেলার পাশে ভুট্টাক্ষেতে নিয়ে যায়। এরপর ধর্ষণ করে এ ঘটনা কাউকে না বলতে ভয়ভীতি দেখান। পরের দিন দুপুরে পুকুরে গোসল করার সময় মেয়েটির শরীরে অসুস্থতার লক্ষণ দেখে জিজ্ঞাসা করে স্বজনরা। স্বজনদের কাছে ধর্ষণের পুরো ঘটনা বলে মেয়েটি। এরপর স্কুলছাত্রীকে অসুস্থ অবস্থায় মানিকগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই আকবরকে আসামি করে শিবালয় থানায় মামলা করেন ছাত্রীর বাবা।জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আবদুল মালেক খান জানান, যৌন নির্যাতনের শিকার হয়ে শিশুটি চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার প্রতিবেদন হাতে পে‌লে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

শিবালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।এদিকে, আকবরের বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। ঘরের দরজায় ছিল তালা ঝোলানো। আকবরের বড় ভাই আহাম্মদ হোসেন জানান, তিন মাসে আগে আকবরের স্ত্রী মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণে মারা যান। এরপর আর বিয়ে করেননি আকবর। ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর থেকেই আকবর পালাতক।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই