মেইন ম্যেনু

মেসির গোলে আর্জেন্টিনার জয়

অবসর ভেঙ্গে দলে ফিরলেন পুরনো রূপে। দলের সেরা তারকা মেসির দেওয়া গোলেই বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে লাতিন আমেরিকার পয়েন্ট তালিকার সবার উপরে থাকা উরুগুয়েকে হারিয়ে শীর্ষে উঠে এলো দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।

ঘরের মাঠে আগে থেকেই ছিলেন না হিগুয়েন। ইনজুরির কারণে দলে ছিলেন না আগুয়েরো ও পাস্তোরে। তবে আক্রমণভাগ ও মাঝমাঠের গুরুত্বপূর্ণ তিন খেলোয়াড় না থাকলেও অবসর ভেঙে ফেরা মেসির নৈপুণ্যে শুরু থেকেই উরুগুয়ের রক্ষণে চাপ বাড়ায় আর্জেন্টিনা। এরই ধারাবাহিকতায় ম্যাচের ৩২মিনিটে অনেকটা দূর থেকে দিবালার নেওয়া শট লাগে ডান পোস্টে লাগলে হতাশ হয় স্বাগতিক দর্শকরা।

ম্যাচের ৪২ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন মেসি। প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের মাঝে বাঁ পায়ে দারুণ ছোঁয়ায় বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এক জনকে কাটিয়ে জোরালো শট নেন বার্সেলোনা তারকা। বল প্রতিপক্ষের এক জনের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। ম্যাচের ৪৫ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন সফরকারী দলের খেলোয়াড় সুয়ারেজ। বল পায়ে বাঁদিক দিয়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়লেও শট নিতে দেরি করে ফেলায় গোল করতে ব্যর্থ হন এই তারকা।

এদিকে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে বড় এক ধাক্কা খায় স্বাগতিকরা। লাল কার্ড দেখে দিবালা মাঠ ছাড়লে ১০ জনের দলে পরিণত হয় মেসির দল। এ অবস্থায় বিরতিতে যায় দুই দল।

বিরতি থেকে ফিরে গোল পরিশোধে মরিয়া হয়ে ওঠে উরুগুয়ে। উল্টো ম্যাচের ৫৪ ২৫ গজ দূর থেকে মেসির জোরালো শট জালে ঢোকার মুহূর্তে কোনোমতে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক মুসলেরা। বাকি সময়ে সুয়ারেজ বেশ কবার স্বাগতিক রক্ষণ ভেঙে ঢুকে পড়লেও ফিনিশিংয়ে অভাবে গোলের দেখা পাননি। বাকি সময় কোন গোল না হলে জয় দিয়েই নিজের প্রত্যাবর্তন করেন মেসি।






মন্তব্য চালু নেই