মেইন ম্যেনু

মেসি-রোনালদোর চেয়েও প্রতিভাবান ছিলেন রোনালদিনহো : ডেকো

সাম্প্রতিককালের সেরা দুই ফুটবলার হলেন আর্জেন্টিনার লিওনেল মেসি ও পর্তুগালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তাদেরকে সর্বকালের সেরা কয়েকজন ফুটবলার হিসেবেও গণ্য করা হয়। কিন্তু ব্রাজিলের ফুটবলার রোনালদিনহো তাদের চেয়ে বেশি প্রতিভাবান বলে মনে করেন পর্তুগালের সাবেক ফুটবলার ডেকো।

৩৮ বছর বয়সী এ মিডফিল্ডার ২০০৪ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে খেলেন। বার্সেলোনায় তার ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় রোনালদিনহোকে পান। ২০০৮ সালে তারা দুজন একসঙ্গে বার্সেলোনা ছাড়েন। শেষের দিকে তরুণ লিওনেল মেসির সঙ্গে খেলেন তারা। এখন সেই মেসিই বিশ্ব কাঁপাচ্ছেন। রোনালদিনহোর পাস থেকেই বার্সেলোনায় নিজের প্রথম গোল পান মেসি। এখন পর্যন্ত রোনালদিনহো ও মেসির মধ্যে বন্ধুত্ব অটুট। তবে যশ-খ্যাতিতে পূর্বসুরি রোনালদিনহোকে টপকে গেছেন মেসি।

ডেকো বলেন, বর্তমান সময়ে মেসি এবং রোনালদো সেরা খেলোয়াড় হলেও রোনালদিনহো ছিলেন তাদের চেয়েও প্রতিভাবান। আমি যখন খেলতাম তখন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো তরুণ। অত্যন্ত প্রতিযোগী মানসিকতার একজন খেলোয়াড়। আর মেসি ফুটবল নিয়ে অত্যন্ত কঠোর পরিশ্রম করতো। নিজের পুরোটা দিয়ে সে চেষ্টা করতো। কিন্তু তাদের দু’জনের চেয়ে রোনালদিনহো প্রকৃতগতভাবে ছিল বেশি প্রতিভাবান। তাকে আমরা যেখানেই বল দিতাম সে গোলের পথ তৈরি করে ফেলতো।

তিনি আরও বলেন, এমন কি অবিশ্বাস্যভাবে গোলও করে ফেলতো। যখন আমরা বুঝতাম না- কী করতে হবে, ঠিক তখনই সে আমাদের কোনো সুযোগ তৈরি করে দিতো। প্রাকৃতিক প্রতিভা বলতে যা বুঝাই তা রোনালদো ও মেসির চেয়ে রোনালদিনহোর বেশি ছিল।

ডেকো পর্তুগালের হয়ে ২০০৩ থেকে ২০১০ পর্যন্ত ৭৫ ম্যাচে করেন ৫ গোল। আর স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে ২ লা-লিগা ও ১ ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জেতেন। ডেকো জন্মগ্রহণ করেন ব্রাজিলে। কিন্তু পরবর্তীতে পর্তুগালের নাগরিকত্ব নিয়ে সে দেশটির জাতীয় দলে খেলেন। বর্তমানে পর্তুগালের জাতীয় দলের ডিফেন্ডার পেপের জন্মও ব্রাজিলে। কিন্তু ১৮ বছর বয়সে তিনি ব্রাজিল ছেড়ে পর্তুগালের নাগরিকত্ব নেন।-এমজমিন






মন্তব্য চালু নেই