মেইন ম্যেনু

মেয়ে পদক জেতায় বাবার পদোন্নতি

ব্রাজিলে চলমান অলিম্পিকের এবারের আসরে প্রথমবারের মতো ভারতের হয়ে পদক জিতেছেন সাক্ষী মালিক। ফ্রিস্টাইল কুস্তির ৫৮ কেজি বিভাগে ভারতকে ব্রোঞ্জ এনে দিয়েছেন তিনি। এই ব্রোঞ্জ জেতায় পুরস্কারের বন্যা ভাসছেন তিনি। তবে আর্থিক পুরস্কারের পাশাপাশি অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে দিল্লি সরকার।

ব্রোঞ্জ জয়ী সাক্ষীকে এক কোটির আর্থিক পুরস্কার দেবে দিল্লি সরকার। এর পাশাপাশি দিল্লি ট্র্যান্সপোর্ট কর্পোরেশনে তার বাবার পদোন্নতির প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে।

ব্রাজিলে যখন একে একে ভারতের পদক জয়ের স্বপ্ন বিলীন হচ্ছিল, ঠিক তখনই দেশকে প্রথম পদক এনে দিয়েছেন সাক্ষী। সম্ভাব্য পদক প্রাপকদের তালিকায় সাক্ষীর নাম কেউই রাখেনি। দীপা কর্মকার, টিন্টু লুকা, ললিতা বাবর ও সাইনা নেহওয়ালদের নিয়েই মেতেছিল দেশবাসী।

সাক্ষী এদিন কোয়ার্টারে হারলেও জয়ী বিপক্ষ ফাইনালে ওঠায় রেপেশাজ রাউন্ড ও পদক জেতার সুযোগের সামনে পৌঁছে যান। এ দিন রেপেশাজ রাউন্ড টু বাউটে প্রথমে মঙ্গোলিয়ার কুস্তিগির ওরখোনের বিরুদ্ধে ১২-৩ এগিয়ে যান। তার পর ব্রোঞ্জ পদক ম্যাচেই বাজিমাত করেন সাক্ষী।

সাক্ষীর আগে ভারত গত দু’টি অলিম্পিকে কুস্তি থেকে ব্রোঞ্জ পেয়েছিল রেপেশাজেতেই। ২০০৮-এ বেইজিংয়ে সুশীল কুমার ও ২০১২ লন্ডনে যোগেশ্বর দত্ত। কিন্তু দেশের প্রথম মহিলা কুস্তিগীর হিসেবে অলিম্পিক পদক এনে ইতিহাসের সাক্ষী থাকলে সাক্ষী।






মন্তব্য চালু নেই