মেইন ম্যেনু

মোবাইলের গায়ে লেগে থাকা ৩টি নতুন জীবাণুর হদিশ

মোবাইল নাকি জীবাণু ছড়াচ্ছে! ইন্টারনেট, ব্লুটুথ বা কোনও ফাইল শেয়ারিংয়ের মাধ্যমে নয়। হাতে হাতে। সারা দিন যে আমরা মোবাইল ঘাঁটছি অজান্তেই তা থেকে সেই সব জীবাণু ছড়াচ্ছে। এমনই ৩টি নতুন জীবাণুর সন্ধান পেলেন পুণের এনসিসিএস (ন্যাশনাল সেন্টার ফর সেল সায়েন্স)-র বিজ্ঞানীরা। কিন্তু তারা আদৌ ক্ষতিকারক নয় বলেই দাবি বিজ্ঞানীদের।

ইউনিভার্সিটি অব সাদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার মলিকিউলার মাইক্রোবাইলোজি এবং ইমিউনোলজি বিভাগের প্রফেসর উইলিয়াম দেপাওলো-র মতে, টয়লেট পেপারের থেকে অনেক বেশি জীবাণু থাকে মোবাইলের গায়ে। ২০১৫ সালে তাঁর একটি গবেষণা পত্রে দেপাওলো জানাচ্ছেন, টয়লেট পেপারে সাধারণত ৩ ধরনের ব্যাকটেরিয়া দেখা গিয়েছে। কিন্তু মোবাইলের গায়ে প্রায় দশ-বারো ধরনের ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাক মিলেছে। তবে এই মোবাইলের গায়ে মিশে থাকা জীবাণুর মধ্যে নতুন দু’টি ব্যাকটেরিয়া এবং একটি ছত্রাককে সনাক্ত করতে পেরেছে পুণের এনসিসিএসের বিজ্ঞানীরা।

কী ভাবে ছড়ায় এ সব জীবাণু?
বিজ্ঞানীদের দাবি, মোবাইল এমন একটা বস্তু যেটি রান্নাঘর থেকে টয়লেট পর্যন্ত আমাদের হাতে ঘোরাফেরা করে। আর এই মোবাইলের সঙ্গে মিশে যায় আমাদের শরীরের ঘাম এবং ময়লা। যার ফলে দিব্যি খেয়ে বেঁচে পরে রয়েছে এই জীবাণুরা।
বিজ্ঞানী জোগেস এস সাউচ এবং তাঁর দল ২৭টি মোবাইল থেকে জীবাণু সংগ্রহ করেন। এই মোবাইলগুলি থেকে ৫১৫টি ব্যাকটেরিয়া এবং ২৮টি ছত্রাকের সন্ধান পান তাঁরা। কিন্তু এ সব জীবাণু মানুষের বন্ধু বলেই মনে করছেন এনসিসিএসের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর প্রদীপ রাহি।

তা হলে আমাদের কী উপকারে লাগে এই জীবাণু?
রাহি বলছেন, “এই ৩ ধরনের জীবাণু ডলফিনের মতো। মানুষের কাছে থাকতে ভালবাসে। নাকের ভিতর বা রেটিনায় থাকা ধুলো-বালি পরিষ্কার করতে সাহায্য করে এরা। “






মন্তব্য চালু নেই