মেইন ম্যেনু

মোবাইল চার্জে দিয়ে মেয়েটি গেম খেলছিল: অতঃপর যা ঘটলো….

মোবাইল ফোনটি চার্জে বসিয়ে গেম খেলায় বিভোর ছিল বছর তেরোর কিশোরী। অঘটন ঘটল তখনই। কিছু বুঝে ওঠার আগেই, পলকে হাতে ধরা ফোন থেকে বিদ্যুত্‍‌স্পৃষ্ট হয় সে। গেমের আনন্দ নিরানন্দে পরিণত হতে লাগল মাত্র কয়েক সেকেন্ড! পোড়ার জ্বলনে গেমের কি থেকে আপসে হাত চলে যায় ঘাড়ে। ঘাড় চেপে ধরে, কাঁদতে কাঁদতে দ্রুত নেমে আসে নীচের তলায়, মায়ের কাছে।

মেয়ের এমন অবস্থা দেখে ঘাবড়ে যান মা জ্যাকি ফেডরো। কী হলো, সেটা বুঝতেই কয়েক মিনিট কেটে যায়। ইলিয়নের বাসিন্দা ফেডরোর কথায়, ও তখন ছটফট করছে। সঙ্গে চিলচিত্‍‌‌কার। কী হয়েছে, ঠাওর করতে পারছিলাম না। মেয়ের এমন যন্ত্রণাকাতর মুখ, মা হিসেব আমাকে বিদ্ধ করছিল। অসহায় ভাবে ওর দিকে তাকিয়ে ছিলাম।

কিছুক্ষণ পরে দেখলাম, ওর ঘাড় কালো হয়ে পুড়ে চামড়া গুটিয়ে গেছে। মেয়ের কাছেই জানলাম, মোবাইল থেকেই এরকম মারাত্মক অবস্থা হয় ওর। গত ক্রিসমাসেই মেয়েকে এলজি-র একটি সেট কিনে উপহার দেন ফেডরো। সেই ফোনটি থেকেই এই বিপত্তি। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, সেকেন্ড ডিগ্রি বার্ন হয়েছে।

ফেডরোর ধারণা, মেয়ে গ্যাবির গলায় চেন থাকাতেই বিদ্যুত্‍‍‌স্পৃষ্টে ঘাড়ের চারপাশ বিশ্রী ভাবে পুড়েছে। যে টি-মোবাইল থেকে গ্যাবির জন্য তার মা ফোনটি কিনেছিলেন, তারা এই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করে গ্যাবিকে একটি নতুন মোবইল সেট পাঠিয়েছে। বাচ্চাটির চিকিত্‍‌সা খরচ দিতেও তারা রাজি হয়। তবে, যে কোম্পানির ফোন থেকে এমন বিপত্তি, সেই এলজি-র তরফে কোনও উচ্চবাচ্যই করা হয়নি।






মন্তব্য চালু নেই