মেইন ম্যেনু

শুক্রবার ফাইনালে চট্টগ্রাম আবাহনীর মুখোমুখি ইস্ট বেঙ্গল

মোহামেডানকে ৩ গোল দিল ইস্ট বেঙ্গল

দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলছিল ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। তবে সেমিফাইনালে এসে সেই গতি আর থাকলো না। নিমেষে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিল কলকাতার ইস্ট বেঙ্গল ক্লাব। চট্টগ্রাম আবাহনীর আয়োজনে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ঢাকা মোহামেডানকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠে গেল কলকাতার ইস্ট বেঙ্গল।

চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে বুধবারের ম্যাচে ইস্ট বেঙ্গলের রন্টি মর্টিন্স দুটি ও মোহাম্মদ রফিক একটি করে গোল করেন। আগামী শুক্রবার একই মাঠে শিরোপা লড়াইয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীর মুখোমুখি হবে কলকাতার দলটি।

দুই বাংলার লড়াইয়ে টান টান উত্তেজনা তৈরী হলেও খেলা শুরুর পর চোট জর্জরিত ঢাকা মোহামেডানের দুর্বলতা প্রকাশ পেতে শুরু করে। মাঝ মাঠের নিয়ন্ত্রণই হারিয়ে ফেলে তারা। একই সঙ্গে ফরোয়ার্ডদের একের পর এক ব্যর্থতায় ধীরে ধীরে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়তে থাকে ঢাকার ঐতিহ্যবাহী দলটি।

খেলার তৃতীয় মিনিটেই গোল পেতে পারতো মোহামেডান। কিন্তু অধিনায়ক অরূপ কুমার বৈদ্যের ডিফেন্সচেরা পাস মোবারক কাট ব্যাক করলেও শেষ টোকাটা দিতে পারেননি গোলমুখে থাকা ফরোয়ার্ড জীবন।

শুরু থেকে গোছালো ফুটবল খেলা ইস্ট বেঙ্গল দশম মিনিটে প্রথম সুযোগটি কাজে লাগিয়ে দেয়। অবিনাশ রুইদাসের ক্রস আশরাফুল ইসলাম রানা গ্লাভসে নেওয়ার আগ মুহূর্তে মিন্টু শেখ পা বাড়ালে বল পেয়ে যান রন্টি মার্টিন্স; ইস্ট বেঙ্গলকে এগিয়ে নিতে ভুল করেননি এই স্ট্রাইকার।

১৪তম মিনিটে অরূপের বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিলেও বক্সের বাইরে মেরে আরেকটি সুযোগ নষ্ট করেন ঢাকা মোহামেডানের ফরোয়ার্ড জীবন। প্রথমার্ধের বাকিটা সময়েও মোহামেডান বার বার ভূলের খেসারত দিতে থাকে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেয় ইস্ট বেঙ্গল; ৪৮তম মিনিটে রফিকের প্রথম প্রচেষ্টা ফেরালেও ফিরতি শট রুখতে ব্যর্থ হন ঢাকা মোহামেডান গোলরক্ষক।

৬০তম মিনিটে ঢাকা মোহামেডানের ম্যাচে ফেরার আশা বলতে গেলে শেষই করে দেন রন্টি। প্রহ্লাদ রায়ের বাড়ানো বল থেকে রানাকে পরাস্ত করেন ইস্ট বেঙ্গলের এই ফরোয়ার্ড।






মন্তব্য চালু নেই