মেইন ম্যেনু

যমুনেশ্বরী নদীর বালু উত্তোলন অব্যাহত ॥ থানায় মামলা

খাদেমুল মোরসালিন শাকীর, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) সংবাদদাতা: কিশোরগঞ্জ উপজেলার বাহাগিলী যমুনেশ্বরী নদীর নিচ থেকে রাতের অন্ধকারে বালু উত্তোলন অব্যাহত রয়েছে।
রবিবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত সাড়ে ৮টার সময় কয়েকজন সংবাদকর্মী একসাথে যমুনেশ্বরী নদীর বালু উত্তোলনের তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে সেখানে বালু ব্যবসায়ী, গাড়ী চালক ও কয়েকজন শ্রমিক বালুর ট্রাক্টরসহ অন্যান্য সরঞ্জামাদী ছেড়ে পালিয়ে যায়।

পরে সেখানে সিনহ কোম্পানির পরিচয় দিয়ে ও বাহা মিঠু বাহাগিলী ইউনিয়ন আওয়ামী যুব লীগের নেতা পরিচয় দিয়ে বালু উত্তোলনের কথা বলেন।

সংবাদকর্মীরা সেই বালু উত্তোলনে সরকারী অনুমোদন আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি (বাহা মিঠু) বলেন,সিনহা কোম্পানির কেনা জমির বালু উত্তোলন করতে কার অনুমতি লাগবে। আমাদের বালু আমরা উত্তোলন করি আর এর কিছু অংশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার’র কার্যালয়ে যায় আর কিছু অংশ থানায় যায়।

তবে এ বিষয়টি বিশ্বাস করতে সাংবাদিকরা করতে নারাজ হলেও তিনি জোর করে বলেন,থানা পুলিশ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ম্যানেজ করে আমরা কাজ করছি।

এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন বাহা মিঠু নামের আমি কাউকে চিনিও না।

আর আমার নাম ভাঙ্গিয়ে কে এ কাজ করছে আমি তাকে দেখতেছি। এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ উপজেলার বিদায়ী নির্বাহী অফিসার মোঃ সিদ্দিকুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি বর্তমান উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবগত করান।

নব নিযুক্ত নির্বাহী অফিসার এস এম মেহেদী হাসানের সাথে কথা হলে তিনি পরিস্কার জানিয়ে দেন এর পূর্বের উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেই বালু উত্তোলনকারীদের ধরিয়ে ভ্রাম্যমান আদালতে সাজা দিয়েছেন। তারপরও বালু উত্তোলন অব্যাহত থাকায় তাদের বিরুদ্ধে আজকে মামলা করার জন্য বাহগিলী ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি।






মন্তব্য চালু নেই