মেইন ম্যেনু

যশোরে বাবা মার ওপর অভিমান করে কিশোর-কিশোরীর আত্মহত্যা

যশোরে বাবা-মায়ের ওপর অভিমান করে মুন্নি খাতুন (১৫) ও শুকুর আলী (১৩) নামে দু’কিশোর-কিশোরী আত্মহত্যা করেছে।
মুন্নি খাতুন বাঘারপাড়া উপজেলার হিঙ্গারপাড়া গ্রামের আইয়ুব হোসেনের মেয়ে ও স্থানীয় জহুরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।
আর শুকুর আলী সদর উপজেলার হাশিমপুর গ্রামের শাহাদত মোল্লার ছেলে ও চৌগাছার পাতিবিলা হেফজখানার হাফিজিয়া মাদ্রাসার ৭ম শ্রেনীর ছাত্র।
মুন্নীর বাবা আইয়ুব হোসেন জানান, পড়াশুনায় অবহেলা করে মোবাইল ফোন নিয়ে ব্যস্ত থাকায় রাতে মেয়ে মুন্নিকে তিনি বকাঝকা করেন। এমনকি মোবাইল ফোনটি ভেঙেও ফেলেন। এ দুঃখ ও অভিমানে রাত দশটার দিকে মুন্নি বিষপান করে। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পরপরই সে মারা যায়। হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাক্তার আব্দুল্লাহ আল মামুন মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন।
এদিকে, শুকুর আলীর পিতা শাহাদত মোল্লাহ জানান, তার ছেলে শুকুর ঈদের ছুটিতে বাড়িতে এসে পরে আর হেফজখানায় যেতে চায়নি। জোর করে তাকে হেফজখানায় পাঠানোর উদ্যোগ নিলে সে পালিয়ে ঢাকা চলে যায়। বাড়ি ফিরলে আবার তাকে হেফজখানায় পাঠানোর চেষ্টা করা হয়। এতে সে বাবা-মায়ের ওপর অভিমান করে রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে নিজ ঘরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে।






মন্তব্য চালু নেই