মেইন ম্যেনু

যাত্রাপথে বমি, যা করবেন

লংড্রাইভে বের হয়েছেন। কিন্তু বমি আপনার ঘুরতে যাওয়ার বারটা বাজিয়ে দিয়েছে। কি করবেন? অনেককেই এই সমস্যায় ভুগতে দেখা যায়। তবে কিছু জিনিসে সচেতন থাকলে এই সমস্যা থেকে দূরে থাকা যায়। জেনে নিন তেমন কিছু উপায়—

যাত্রাপথে ভারী খাবার খাবেন না

গাড়িতে ওঠার আগে ঝাল-মশলাযুক্ত খাবার, কোমল পানীয় বা চিপস ইত্যাদি খাবেন না। যারা বমির সমস্যায় ভোগেন তারা প্রয়োজনে হালকা কিছু খেয়ে গাড়িতে উঠুন। যাত্রাপথে ভারী খাবার না খাওয়াই ভালো।

সুগন্ধযুক্ত খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন

অতিরিক্ত ঘ্রাণ বা সুগন্ধযুক্ত খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। ভ্রমণের সময় সঙ্গে পানি রাখুন এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। দারচিনি, লবঙ্গ ও টক জাতীয় খাবার বমিভাব দূর করে। যাত্রাপথে এগুলো সঙ্গে রাখতে পারেন।

গড়ির গতির উল্টো দিকে বসবেন না

ট্রেন, বাস বা গাড়ি যেদিক মুখ করে সামনে এগুচ্ছে তার উল্টো দিকে কখনোই বসবেন না। এতে বমিভাব আরও বেশি হয়। গাড়ি যেদিকে যাচ্ছে সেদিকে মুখ করে বসুন।

পেছনের সিটে বসবেন না

বাসে কিংবা গাড়িতে পেছনের দিকের সিটে বসার ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। পেছনের দিকে সিটে ঝাঁকুনি বেশি লাগে যা অনেক সময় বমির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

ধূমপান করবেন না

ভ্রমণের সময় ধূমপান করবেন না। পান-সুপারি এবং অন্যান্য নেশা জাতীয় দ্রব্যও এড়িয়ে চলুন।

মোবাইলে গেম খেলা থেকে বিরত থাকুন

চলন্ত অবস্থায় বই পড়া, মোবাইলে গেম খেলা বা নেট ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। এর ফলে সমস্যা বেড়ে যেতে পারে।

মনকে শান্ত রাখার চেষ্টা করুন

ভ্রমণের সময় মনকে শান্ত ও প্রফুল্ল রাখার চেষ্টা করুন। বমি হতে পারে এই কথা ভুলে থাকুন। মনকে প্রফুল্ল রাখতে গান শুনতে পারেন।

বমির দিকে নজর দিবেন না

যাত্রাপথে অন্য যাত্রীকে বমি করতে দেখে অনেকের বমি হতে পারে। এ কারণে ওই যাত্রীর দিক থেকে মনোযোগ সরিয়ে অন্য দিকে মনোযোগ দিন। এক্ষেত্রে জানালার পাশে বসে বাইরের সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন।

বমি নিরোধক ওষুধ খেয়ে নিন

সমস্যা খুব বেশি হলে যাত্রা শুরুর আগে বমি নিরোধক ট্যাবলেট খেয়ে নিতে পারেন। তবে যেকোন ওষুধ সেবনের আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ করে নিন৷






মন্তব্য চালু নেই