মেইন ম্যেনু

যাত্রীচাপ কমাতে গার্মেন্টসে ভিন্ন ভিন্ন দিনে ছুটি

আসন্ন ঈদে সড়ক, রেল ও নৌ-পথে ঘরমুখো যাত্রীদের অত্যধিক চাপ কমাতে গার্মেন্টসগুলো একইদিনে ছুটি প্রদান এবং একই দিনে খোলার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ভিন্ন ভিন্ন দিনে ছুটি প্রদান ও খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ ও বিকেএমইএকে অনুরোধ করা হয়েছে। মঙ্গলবার যোগাযোগ সংক্রান্ত আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যানজটমুক্ত যানবাহন চলাচলের সুবিধার্থে ঢাকা মহানগরী এবং জাতীয়, আঞ্চলিক ও জেলা মহাসড়কের উভয় পাশে অস্থায়ী ও ভাসমান বাজার অপসারণের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অন্যান্য বছরের মতো বিআরটিসির স্পেশাল ঈদ সার্ভিস, বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রধান প্রধান রুটে স্পেশাল ট্রেন সার্ভিস এবং স্পেশাল লঞ্চ সার্ভিস চালু রাখা হবে। এজন্য সকলেই ঘোষণা অনুযায়ী অগ্রিম টিকেট দেবেন।

সভায় পরিবহন মালিকদের প্রতি বলা হয়, যত্রতত্র হর্ণ বাজানো বন্ধ করতে হবে। বিআরটিসিসহ সকল পরিবহনে মহিলা ও প্রতিবন্ধীদের জন্য আসন সংরক্ষিত রাখতে হবে। পরিবহণ ওঠা-নামার ক্ষেত্রে মহিলাদের সঙ্গে সম্মান ও মর্যাদাপূর্ণ আচরণ করতে হবে।

অপ্রত্যাশিত যানজটে মহিলা ও শিশুদের ব্যবহারের সুবিধার্থে মহাসড়কের পাশে অবস্থিত পেট্রোল পাম্প, সিএনজি স্টেশন, হাইওয়ে রেস্টুরেন্ট, ডাক বাংলো এবং মাওয়া, কাওড়াকান্দি, দৌলতদিয়া, পাটুরিয়াসহ সকল ঘাটের টয়লেটগুলো ব্যবহার উপযোগী রাখা হবে। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উদ্যোগে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক মোড়ে অস্থায়ী ভিত্তিতে টয়লেট নির্মাণ করা হবে।

সভায় জরুরি সার্ভিসসমূহ প্রস্তুত রাখার কথা বলা হয়, বিশেষ করে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও টেলিফোন ইত্যাদি সংস্থার অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণকে যাতে জরুরি প্রয়োজনে পাওয়া যায় সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগ কর্তৃক প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারী করার অনুরোধ করা হয়।

জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কের অবস্থা বর্তমানে যেকোন সময়ের তুলনায় উন্নত। এতদসত্ত্বেও সব জাতীয় ও আঞ্চলিক এবং জেলা মহাসড়ক প্রয়োজনে রক্ষণাবেক্ষণ ও মেরামত করে যান চলাচলের সম্পূর্ণ উপযুক্ত রাখা হবে। মেরামত উপকরণসহ প্রতিটি সড়ক বিভাগে মোবাইল ট্রাক ইউনিট প্রস্তুত রাখা ও ছোট-ছোট গর্ত হলে দ্রুত মেরামত করার নির্দেশ দেওয়া হয়। আর মন্ত্রণালয়ের মনিটরিং টিম সার্বক্ষণিক পরিস্থিতি মনিটর করবে।






মন্তব্য চালু নেই