মেইন ম্যেনু

যিশুর আঘাতের মতোই ক্রুশবিদ্ধ হয়েছেন রোনালদো!

ইউরো কাপের ফাইনালে প্রতিপক্ষ ফ্রান্সের ফুটবলার পায়েতের আঘাতে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। তারপরও জয় রোনালদোর পর্তুগালই পেয়েছে। এ কথা এখন সবারই জানা। কিন্তু রোনালদোর পরিবার এ আঘাতটাকে সহজভাবে নেননি। এর আগে তার মাও একহাত নিয়েছে পায়েতকে। এবার তার পপস্টার বোনও ভাইয়ের আঘাতকে যিশুর আঘাতের সঙ্গেই তুলনা করলেন!

রোনালদোর সেই চোট প্রসঙ্গে এবার মুখ খুললেন তার বোন কাতিয়া আভেইরা। নিজের ভাইকে তিনি যিশুর সঙ্গে তুলনা করলেন।

কাতিয়া বলেন, ‘চোট পাওয়া ভাইকে দেখে মনে হচ্ছিল কেউ যেন বুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারছিল। আমরা সকলেই ওর সঙ্গে কাঁদছিলাম। সকলেই ওর মতো যন্ত্রণায় ছটফট করছিলাম।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘কিন্তু ঈশ্বর সর্বময়। ঠিক যেমন যিশু খ্রিস্ট নিজে ক্রুশবিদ্ধ হয়ে আমাদের সকলের জন্য সুন্দর পৃথিবী গড়ে দিয়ে গিয়েছেন, ক্রিশ্চিয়ানোও একইরকম যন্ত্রণা ভোগ করেছে। সতীর্থদের সাহায্য করতে না পেরে কেঁদেছে। তারপরও ঈশ্বর ওদের হাতে ট্রফি তুলে দিয়েছেন। পর্তুগাল চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।’

রোববার ইউরোর ফাইনালে ফ্রান্সের দিমিত্রি পায়েতের আঘাতে রোনলদোকে খেলার ২৫ মিনিটেই মাঠ ছাড়তে হয়। যদিও অতিরিক্ত সময়ে এদেরের করা গোলে তার দল প্রথমবারের মতো ইউরোর শিরোপা নিজেদের ঘরে তুলেছে। তাই সে চোট নিয়ে তার এখন কোনো মাথাব্যথা নেই। শিরোপা জয়ের আনন্দেই বুঁদ হয়ে আছেন এ তারকা ফুটবলার।

২০০৪ সালে গ্রীসের কাছে হেরে গিয়ে পর্তুগালকে রানার্স আপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। তারপর থেকেই রোনালদো স্বপ্ন দেখে আসছিলেন। এ শিরোপা জয়ই রোনালদোর জীবনের প্রধান লক্ষ্য ছিল। দীর্ঘ ১২ বছর অপেক্ষার পর ৩১ বছর বয়সী রোনালদো নিজের স্বপ্নপূরণে সফল হলেন।






মন্তব্য চালু নেই