মেইন ম্যেনু

‘যুক্তরাজ্যের সঙ্গে নতুন করে আলোচনা করতে হতে পারে’

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্য বের হয়ে গেলেও দেশটি থেকে প্রাপ্ত সুবিধা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তবে এ নিয়ে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে নতুন করে আলোচনা করতে হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

রোববার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সাতটি সংস্থার সঙ্গে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের কর্মপরিকল্পনা চুক্তি বাস্তবায়ন সংক্রান্ত অনুষ্ঠান শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী সাংবাদিকেদের এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ইইউ থেকে যুক্তরাজ্য বেরিয়ে যাওয়ার কারণে নতুন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে আমাদের অনেক করণীয় আছে। বাংলাদেশ যে পরিমাণ তৈরি পোশাক রপ্তানি করে, তার মধ্যে ৫৪ শতাংশ ইইউতে যায়। একক রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে যুক্তরাজ্য বাংলাদেশি পণ্যের তৃতীয় গন্তব্যস্থল।’

যুক্তরাজ্য ইইউ থেকে বের হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশের করণীয় নির্ধারণে ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যানকে প্রধান করে উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি গঠন করার ঘোষণা দেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ইইউ থেকে যুক্তরাজ্য বের হয়ে যাওয়ার কারণে ইউরো ও পাউন্ডের দরপতন হয়েছে। ব্যবসায়ীরা তিন ট্রিলিয়ন ডলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। পাউন্ডের দর ১১৮ থেকে ১০৩ টাকায় নেমে এসেছে। এ অবস্থায় তৈরি পোশাক খাতকে সহায়তা করতে হবে, যাতে এ খাতটি থমকে না দাঁড়ায়।

তিনি বলেন, আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারত সম্প্রতি তাদের তৈরি পোশাক খাতকে সহায়তা দিতে ৬ হাজার কোটি রুপি নগদ সহায়তা দেওয়ার প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। এর প্রভাবও আমাদের ওপর পড়তে পারে। এ কারণে তৈরি পোশাক খাতকে সহায়তা করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বেক্সিট অর্থাৎ ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার জন্য যে গণরায় হয়েছে, তাতে আমাদের সামনে নতুন পরিস্থতির সৃষ্টি হয়েছে। এসব ব্যাপারেও আমাদের অনেক করণীয় আছে। বেক্সিট নিয়ে বেশিরভাগ সংবাদ মাধ্যমই নেগেটিভ লিখছে, এখানে পজিটিভও অনেক কিছু আছে।

তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের রপ্তানির তৃতীয় প্রধান গন্তব্যস্থান। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রথম, জার্মানি দ্বিতীয়। নতুন সিদ্ধান্তের কারণে আমাদেরও কোনো কোনো ক্ষেত্রে নতুন করে রি-নেগোসিয়েশন, আবারও আলোচনা করতে হতে পারে। ইইউ থেকে যে সুবিধা পেয়ে থাকি বা পাচ্ছি তা অব্যাহত থাকবে বলেই আমার কাছে প্রতীয়মান। কারণ যুক্তরাজ্যের সঙ্গেও আমাদের ভালো সম্পর্ক। সুতরাং যে সুবিধা পাই এর কোনো ব্যাত্যয় ঘটবে না।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই