মেইন ম্যেনু

যুক্তরাষ্ট্রে কর্মস্থলে এখনো লিঙ্গবৈষম্য প্রবল

মার্কিন নারীরা পুরুষের সমমানের কাজের জন্য সম পরিমান বেতন পাচ্ছে না এবং এটা শুধু একটা দুটো কাজের ক্ষেত্রে না, সবক্ষেত্রে। বিবাহিত নারী এবং পুরুষের বেতনের ওপর করা এক গবেষণার ফলাফলের পার্থক্য থেকে এই তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

বাবারা যেখানে সর্বচ্চ ৬৭ হাজার ৯০০ ডলার কামাই করে, মায়েদের কামাই সেখানে মাত্র ৪৬ হাজার ৮০০ ডলার। এদিকে স্বামী ছাড়া কেবল বাচ্চা নিয়ে থাকে এরকম একা মায়েদের (সিঙ্গেল মাদার) কামাই মাত্র ৩৮ হাজার ২০০ ডলার।

গবেষণা পরিচালনা করেছে একটি অনলাইন ভিত্তিক বেতন, মুনাফা এবং ভাতার তথ্যমূলক কোম্পানি ‘পে স্কেল ইন কর্পোরেটেড’। এর একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেছেন, ‘লিঙ্গ বৈষম্য যে কোনো কাল্পনিক জিনিস না সেটা এ থেকে বোঝা যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের কর্মশক্তির অর্ধেকের বেশি জুড়ে আছে নারীরা অথচ এখনো আমরা তাদের মূল্যায়ন করতে পারছি না।’

৫০ থেকে ৫৫ বছর বয়সের আগে পর্যন্ত একজন পুরুষের বেতন বাড়তে বাড়তে যখন মাঝারি বেতন অর্থাৎ ৭৫ হাজার ডলারে পৌঁছে সেখানে ৩৫ থেকে ৪০ বছরের একজন নারীর বেতন ৪৯ হাজারে এসে আটকে যায়।

পে স্কেল কোম্পানি প্রায় দেড় লাখ কর্মজীবী মানুষের ওপর গবেষণা করে এই তথ্য বের করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কা, ডেলোওয়ার, মিশিগান এবং ওয়াশিংটন এই চার অঙ্গরাজ্যে যেকোনো সাধারণ কাজের জন্য যেখানে পুরুষের বেতন এক লাখ ডলারেরও বেশি সেখানে নারীরা পাচ্ছে ৭৭ হাজারের বেশি না।

পে স্কেল খতিয়ে দেখেছে যে, এর কারণ হচ্ছে পুরুষেরা বেশি বেতনের কাজগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে। নারীরা সেখানে সুযোগ পাচ্ছে না।






মন্তব্য চালু নেই