মেইন ম্যেনু

যুক্তরাষ্ট্র নতুন কোনো সতর্কবার্তা দেয়নি

যুক্তরাষ্ট্র তার নাগরিকদের বাংলাদেশ ভ্রমণে নতুন করে সতর্কবাতা দিয়েছে বলে যে খবর প্রচার হয়েছে তা নাকচ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট। তিনি বলেছেন, আমরা নতুন করে কোনো সতর্কবার্তা দিইনি। কেবল আগের বার্তাটি নবায়ন করা হয়েছে।

আজ রবিবার রাজধানীর মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বার্নিকাট এসব কথা বলেন।

নারীর ক্ষমতায়ন ও পুষ্টি নিরাপত্তা বিষয়ক এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ অ্যালায়েন্স ফর উইম্যান লিডারশিপ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত। তিনি জানান, বাংলাদেশে অবস্থানরত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী যে সহযোগিতা করছে তা সন্তোষজনক। এজন্য তিনি বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

বার্নিকাট বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউইয়র্কে দেয়া সাম্প্রতিক বক্তৃতায় বলেছেন, সন্ত্রাসীদের কোনো দেশের ও ধর্মের সীমানা নেই। তাদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছিলেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্র এ ধরনের আহ্বানে সাড়া দিতে প্রস্তুত।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশে তার দেশ আগে যেভাবে সহযোগিতা করেছে এখনও তা অব্যাহত থাকবে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশ একযোগে কাজ করে যাবে বলেও জানান বার্নিকাট।

প্রসঙ্গত, এর আগে গতকাল শনিবার ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের নিরাপত্তা বার্তায় সে দেশের নাগরিকদের সতর্ক চলাচলের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। বিদেশি নাগরিকদের ওপর আবারও হামলা হতে পারে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করা হয় দূতাবাসের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বার্তায়।

ওই বার্তায় বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক হোটেলগুলোতে আয়োজিত পশ্চিমা নাগরিকদের বড় জমায়েতসহ অন্যান্য স্থানে হামলা হতে পারে তাদের কাছে নির্ভরযোগ্য তথ্য বলে দাবি করা হয়। তবে সরকারের পক্ষ থেকে মার্কিন এই সতর্কবার্তাকে “বাড়াবাড়ি” বলে আখ্যায়িত করা হয়। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল মার্কিন এই সতর্কবার্তার সমালোচনা করেন।






মন্তব্য চালু নেই