মেইন ম্যেনু

যুগলদের জন্য দিনের বেলায় হোটেল রুমের ব্যবস্থা

কিছুদিন আগেও কেউ যদি প্যারিসে একটি রুম ভাড়া করতে চাইতেন তাকে হয়তো ২৪ ঘণ্টার জন্যই ভাড়া গুনতে হতো। অথবা তাকে ফোঁবোয়া সঁ দেঁনিতে যেতে হতো, যেখানে অল্প সময়ের জন্য ঘর ভাড়া পাওয়া যায়।

বিবিসি বাংলা জানিয়েছে, এখন এমন একটি ওয়েব সাইট চালু হয়েছে, যারা যুগলদের জন্য দিনের বেলায় হোটেল রুম ভাড়া করে দেয়। দায়ুশে ডট কম নামের এই ওয়েবসাইটটির ব্যবহারকারীর সংখ্যাও এখন অনেক। দায়ুশ ওয়েবসাইটের নিয়মিত ব্যবহারকারী এলিস মনে করেন এটি আধুনিক শতাব্দীর একটি দরকারি ব্যবস্থা।

এলিস বলেন, আমার বয়ফ্রেন্ড এবং আমি খুবই ব্যস্ত সময় কাটাই। অনেক দিন আমাদের গভীর রাতে, এমনকি সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও কাজ করতে হয়। তাই নিজেদের মতো করে কাটাতে যখন কিছুটা সময় পাই, আমরা সেটা ব্যবহার করার চেষ্টা করি। প্যারিসের মধ্যে, আমাদের অফিসের কাছেই, দিনের মধ্যে কয়েক ঘণ্টা একসাথে থাকার জন্য আমাদের সুযোগ করে দিয়েছে ব্যবস্থাটি।

বিশ্বের আরো অনেক জায়গার মতো প্যারিসেও নিজেদের বাসার একটি রুম হোটেলের মতো ভাড়া দেওয়ার রেয়াজ চালু হয়েছে। তার ফলে প্রতিদ্বন্দ্বীতার মুখে পড়ছে হোটেলগুলো। অথচ দিনের বেশিরভাগ সময় এসব হোটেল এমনিতেই ফাঁকা থাকে।

তাই হোটেল মালিকরা মনে করেন, এই সময়ে যদি কিছু বাড়তি আয় আসে, খারাপ কি?

অবশ্য শুধু প্যারিসেই নয়, সাও পাওলো থেকে লন্ডন এবং সিঙ্গাপুরেও ব্যবসা আছে দায়ুশের। দিনের বেলায় এসব হোটেলের ভাড়া, রাতের তুলনায় অর্ধেক।

যদিও প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক লরেঞ্জ অ্যাশট্টি বলছেন, সব শ্রেণির মানুষই তাদের ব্যবসার লক্ষ্য, তবে এতে যদি যুগলরা একটু সুবিধা পায়, ক্ষতির তো কিছু নেই।

ডেটিং ওয়েবসাইটের কারণে অনেক সময় গ্রাহকরা হয়তো সহজেই কলগার্ল নিয়ে এসব হোটেলে থাকার সুযোগ নিতে পারেন। হোটেল কর্তৃপক্ষের পক্ষে সেটা তো যাচাই করাও সহজ নয়। কিন্তু তা সত্ত্বেও, দায়ুশের জনপ্রিয়তা দিনদিন বাড়ছে।

এ বছর বিশ্বের আরো কয়েকটি শহরে ব্যবসা বাড়াতে তারা ১৫ মিলিয়ন ইউরো বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই