মেইন ম্যেনু

যেকোনো দেশের চেয়ে বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা বেশি মেধাবী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্বের যেকোনো দেশের ছেলে-মেয়ের তুলনায় বাংলাদেশের ছেলে-মেয়েরা অনেকে বেশি মেধাবী। কেবল তাদের সুযোগ-সুবিধাটা তৈরি করে দিতে হবে। তা হলে কোনো কিছু থেকে পিছিয়ে থাকবে তারা।

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মেয়েরা এইচএসসিতে ভালো করেছে, এ জন্য খুশি। ছেলেমেয়ে সবাইকে অভিনন্দন। সন্তান সন্তানই। ছেলে হোক আর মেয়ে হোক, সবাইকে শিক্ষিত করতে হবে। কেননা, একমাত্র শিক্ষাই পারে দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে।

শেখ হাসিনা বলেন, ছেলেরা বাইরে ঘোরাঘুরি করে, দুষ্টুমি করে। এ কারণে বেশি পড়াশোনা করতে চায় না। খেলাধুলা করতে হবে, দুষ্টুমিও করতে হবে। আর্ট-কালচারে সমৃদ্ধ হতে হবে। কিন্তু সবকিছুর পর পড়াশোনা করতেই হবে। ছেলেদের পিছিয়ে থাকলে চলবে না। মেয়েদের সঙ্গে সমানে সমান হতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল হয়ে গেছে। অনলাইনে কাজ হচ্ছে। অল্প খরচে এসএমএসে মানুষ পরীক্ষার ফলাফল জানতে পারছে। টাকা খরচ করে আর প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ফল জানতে হচ্ছে না। মোবাইল ফোন মানুষের দোরগোড়ায় তার সরকারই পৌঁছে দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার তাদের একজন মন্ত্রীকে ব্যবসার সুযোগ দিতে মোবাইল ফোন খাতে মনোপলি চালু করে। তখন ফোনের জন্য দেড় লাখ টাকা লাগত। মিনিটে খরচ হতো ১০ টাকা। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে এটা সবার জন্য উন্মুক্ত করেছে। এখন খরচ খুবই কম।

এর আগে সকালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবারের এইচএসসি ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তুলে দেন। এবার উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৭৪ দশমিক ৭০ শতাংশ এবং মোট জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫৮ হাজার ২৭৬ পরীক্ষার্থী।






মন্তব্য চালু নেই